Latest News

লখিমপুর খেরির ধর্ষণ-খুন মামলায় নিহতদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণে ৩৫ লাখ টাকা, কৃষি জমি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ঘটনাটির সঙ্গে হাতরাসের ধর্ষণকাণ্ডের হুবহু মিল। কিন্তু সরকারের প্রতিক্রিয়া আমূল ফারাক। লখিমপুর খেরিতে দুই দলিত কন্যাকে অপহরণ, গণধর্ষণ ও খুনের ঘটনায় (Lakhimpur Rape and Murder Case) উত্তরপ্রদেশের যোগী আদিত্যনাথ (Yogi Adityanath) সরকার ক্ষতিপূরণ বাবদ আক্রান্ত পরিবারটিকে নগদ ৩৫ লাখ টাকা এবং চাষের জমি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ প্রশাসনকে বলেছেন, যত দ্রুত সম্ভব টাকা এবং জমির কাগজপত্র দুই বোনের পরিবারের হাতে তুলে দিতে হবে। পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন, ফার্স্ট ট্র্যাক কোর্টে ঘটনার দ্রুত বিচারের ব্যবস্থা করতে।

লক্ষণীয় হয় হল, দু বছর আগে হাতরাসের ঘটনায় রাজ্য প্রশাসনের ভূমিকা ছিল ভিন্ন। সেখানেও মাঠ থেকে এক দলিত কিশোরীকে তুলে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণের পর খুন করা হয়েছিল। ওই ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে অপরাধীদের ধরতে গড়িমসির অভিযোগ উঠেছিল। নিহত কিশোরীর দেহ পরিবারের হাতে না দিয়ে পুলিশ রাতের অন্ধকারে খোলা মাঠে দাহ করে দেয়। পরিবারের অভিযোগ নিয়েও সংশয় প্রকাশ করা হয় গোড়ায়। আক্রান্ত পরিবারের সঙ্গে গোড়ায় সংবাদমাধ্যমকে দেখা করতে দেওয়া হয়নি। অভিযুক্তরা ছিল গ্রামেরই উচ্চবর্ণ পরিবারের সন্তান। ওই ঘটনার খবর সংগ্রহ করতে যাওয়ার পথেই কেরলের সাংবাদিক সিদ্দিক কাপ্পানকে গ্রেফতার করে যোগী আদিত্যনাথের পুলিশ। এখনও তিনি জেল বন্দি।

লখিমপুর খেরির ঘটনায় পুলিশ কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই অভিযুক্ত ছয়জনকেই গ্রেফতার করেছে। ধৃতরা সকলেই সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের সদস্য। উত্তরপ্রদেশের দুই উপ মুখ্যমন্ত্রী ব্রজেশ পাঠক ও কেশব প্রধান মৌর্য আগেই ঘোষণা করেছেন, অভিযুক্তদের নজিরবিহীন কঠোর সাজা দেওয়া হবে।

মোদীর মধ্যে রাম-কৃষ্ণ-গান্ধীকে দেখলেন কঙ্গনা! জন্মদিনে অভিনব শুভেচ্ছা

You might also like