Latest News

টোকেন শুরু হচ্ছে কলকাতায় মেট্রোয়, কবে থেকে জানাল কর্তৃপক্ষ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: করোনার আতঙ্ক কাটিয়ে ধীরে ধীরে ছন্দে ফিরছে শহর। লোকাল ট্রেন চালু হয়ে গেছে ইতিমধ্যেই। মেট্রোর সংখ্যা ও সময়ও বেড়েছে (Kolkata Metro)। এবার মেট্রো রেলেও টোকেন ফেরানোর পরিকল্পনা করেছে কর্তৃপক্ষ। ২৫ নভেম্বর বৃহস্পতিবার থেকেই টোকেন শুরু হচ্ছে মেট্রোতে।

করোনার জন্য এতদিন টোকেন বন্ধ রাখা হয়েছিল। স্মার্টকার্ডই ছিল একমাত্র ভরসা। যাঁদের স্মার্ট কার্ড ছিল না, তাঁরা সমস্যায় পড়ছিলেন। এখন ক্রেতা সুরক্ষা দফতরের সুপারিশে ফের টোকেন ফিরিয়ে আনা হচ্ছে মেট্রোয়। জানা গেছে, কাউন্টার ছাড়াও অটোমেটিক স্মার্টকার্ড রিচার্জ মেশিন থেকেও কেনা যাবে টোকেন।

মেট্রোয় প্রতিদিন যাতায়াত করেন যাঁরা তাঁদের স্মার্ট কার্ড করানোই থাকে। কিন্তু মাঝেমধ্যে যাঁরা মেট্রো পরিষেবা নেন, তাঁদেরই টোকেন দরকার হয়। করোনার কারণে গত ২৩ মার্চ থেকে টোকেন পরিষেবা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। আগামী বৃহস্পতিবার থেকে ফের তা চালু হবে বলে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানিয়েছে মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষ। জানা গেছে, উত্তর-দক্ষিণ এবং পূর্ব-পশ্চিম মেট্রোয় টোকেন ব্যবস্থা ফিরে আসছে।

কোথা থেকে কেনা যাবে টোকেন?

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, কাউন্টার থেকে পুরনো নিয়ম মেনেই টোকেন কেনা যাবে। তাছাড়া অটোমেটিক স্মার্টকার্ড রিচার্জ মেশিন থেকেও কেনা যাবে টোকেন।  অটোমেটিক ভেন্ডিং মেশিন, টিকিট ভেন্ডিং মেশিন থেকেও টোকেন কেনার ব্য়বস্থা থাকছে।

করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় যাত্রী পরিষেবা আগের মতো স্বাভাবিক করতে চাইছেন মেট্রো। তারই অঙ্গ হিসেবে টোকেন ফিরিয়ে আনার পাশাপাশি মেট্রো চলাচলের সময়সীমা বাড়ানোর প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে।

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড নিয়ে অভিযোগের পাহাড়, রাজ্য সরকারের হলফনামা চাইল হাইকোর্ট

করোনা-পূর্ব পরিস্থিতিতে মেট্রোয় দৈনিক হাজারখানেক টোকেন খোয়া যেত। সে সময়ে ৫০ শতাংশ যাত্রী স্মার্ট কার্ড ব্যবহার করলেও বাকিরা টোকেন ব্যবহার করতেন। তাই দৈনিক কয়েক লক্ষ যাত্রীর জন্য ব্যস্ত সময়ে বিভিন্ন স্টেশনে টোকেনের জোগান ঠিক রাখার পাশাপাশি, বুকিং কাউন্টারে পর্যাপ্ত খুচরো টাকার জোগানও রাখতে হত। বিশেষ দিনে কাউন্টার চালাতে বেশি সংখ্যক কর্মীও লাগত। টোকেন চালু হওয়ার পরে ফের ভিড় বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করাও হচ্ছে।

আপাতত সবকটি স্টেশনে টোকেন কাউন্টার খোলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। চাহিদা বাড়লে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ মেনে টোকেন কাউন্টারের সংখ্যা বাড়ানো যাবে। বুকিং কাউন্টারের কর্মীরা যাত্রীদের টোকেন দেওয়ার সময়ে কী ধরনের সতর্কতা গ্রহণ করবেন, তা এখনও জানানো হয়নি। ব্যবহৃত টোকেন কী ভাবে জীবাণুমুক্ত করা হবে, সেটাও এখনও স্পষ্ট নয়। টোকেন ব্যবহার হলে সংক্রমণ বৃদ্ধি যাতে না হয় সেদিকে খেয়াল রাখা হবে বলে জানিয়েছে মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষ।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা সুখপাঠ

You might also like