Latest News

রক্তে থ্যালাসেমিয়া, আঁকায় জীবনের ছবি, পাশে থেকে যুদ্ধজয়ের সাহস জোগাচ্ছে সেরাম

চৈতালি দত্ত

গত কয়েক বছরের মতো সেরাম থ্যালাসেমিয়া প্রিভেনশন ফেডারেশনের উদ্যোগে হয়ে গেল থ্যালাসেমিয়া (Thalassemia) এবং এইডস সংক্রান্ত সচেতনতা মূলক এক আঁকার প্রতিযোগিতা।

শ্যামবাজার পাঁচ মাথার মোড়ের কাছের সেরামের অডিটোরিয়ামে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। থ্যালাসেমিয়া (Thalassemia) আক্রান্ত বাচ্ছাদের এই সব আঁকা ছবি যেন জীবনের কথা বলে। আশা জাগায় নতুন উদ্যমে বাঁচার। এ যেন ভাল থাকার, ভাল রাখার অঙ্গীকার। যাঁদের নিজেদের শরীরে এমন অসুখের বাসা তাঁদের আঁকায় উঠে আসে জীবনের ছবি। রবীন্দ্রনাথের কথায় বলা যায় ‘বিপদে মোরে রক্ষা করো এ নহে মোর প্রার্থনা, বিপদে আমি না যেন করি ভয়’। ঠিক যেন ওদেরও তাই প্রার্থনা।

অনেকটা সেই ‘আনন্দ’ ছবির ‘আনন্দ’ চরিত্রের মতো, হাতে স্বপ্নের অনেক বেলুন নিয়ে হেঁটে চলে যাচ্ছে জীবনের গান গেয়ে। এই ছবি ব্যবহার হয়েছে সংস্থার ক্যালেন্ডারেও। প্রতিযোগিতার প্রথা অনুযায়ী প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় পুরস্কারে সম্মানিত হলেও পুরস্কৃত হন সকলেই। পুরস্কারে থাকে জীবনদায়ী ওষুধ। উদ্দেশ্য একটাই, ওদের ভাল রাখার পাশাপাশি সাধারণ মানুষের মনে এই রোগ নিয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি করা।

Image - রক্তে থ্যালাসেমিয়া, আঁকায় জীবনের ছবি, পাশে থেকে যুদ্ধজয়ের সাহস জোগাচ্ছে সেরাম

এই ছবি আঁকা প্রতিযোগিতার পাশাপাশি ছিল এক বিশাল পদযাত্রা। সচেতনতা বৃদ্ধিতে নানা ট্যাবলো সাজানো হয়েছিল। কোথাও থ্যালাসেমিয়ার গান, কোথাও দুর্গা পুজোর ইউনেস্কোর স্বীকৃতির উদযাপন, কোথাও বাংলার ফুটবল তো কোথাও মূকাভিনয়ে থ্যালাসেমিয়া, এইডস নিয়ে সচেতনতার বার্তা। ছিল রক্তদান শিবির।

সব মিলিয়ে এক বৃহৎ তথা মহৎ উদ্যোগে সামিল সেরাম থ্যালাসেমিয়া (Thalassemia) প্রিভেনশন ফেডারেশন। সংস্থার সম্পাদক, সঞ্জীব আচার্য বলেন,’ সমাজের সম্ভাব্য প্রতিটি কোণায় মানুষ অনেক বেশি করে সচেতন হোক এটাই আমাদের এই উদ্যোগের মূল লক্ষ্য। অনেক জটিলতার মধ্যেও ভাল করে বেঁচে থাকা যায় । সম্প্রতি আমরা বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন ছেলে মেয়েদের জন্য একটা হাতে কলমে কাজ শেখানোর জন্য প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ‘ভরসা’ শুরু করেছি।’

You might also like