Latest News

ভারতের সহায়তায় বাংলাদেশে খুলনা-মোংলা রেল চালু অচিরেই

দ্য ওয়াল ব্যুরো: খুলনা-মোংলা রেল প্রকল্প (Khulna-Mongla Rail Project) ফের নতুন করে গতি পেয়েছে। কাজ শেষ প্রায় ৯০ শতাংশ। ভারত-বাংলাদেশ চুক্তির (Indo-Bangladesh Treaty) ফসল এই রেল। এটি চালু হলে লাভবান হবে ভারতও। খুলনা দিয়ে মোংলা বন্দর ব্যবহার করতে পারবে ভারতও। ইতিমধ্যে পদ্মাসেতু চালু হওয়ায় মোংলা দিয়ে বাংলাদেশ বস্ত্র রফতানি শুরু করেছে।

খুলনা-মোংলা রেলের কাজ দীর্ঘ ১০ বছর সময় ধরে এই কাজ চলছে। কবে শেষ হবে সেই নিয়ে বাংলাদেশের মানুষের মধ্যে কৌতূহল ছিল। বারবার এই প্রকল্প ধাক্কা খেয়েছে, পাল্টেছে উদ্বোধনের সময়ও। তবে কাজের অগ্রগতি খতিয়ে দেখে ওপার বাংলার (Bangladesh) রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন জানিয়ে দিলেন, চলতি বছরের শেষেই এই প্রকল্প শেষ হয়ে যাবে। অর্থাৎ ডিসেম্বর মাসের মধ্যেই এই অংশে যান চলাচল করবে।

পদ্মা সেতুর পর এটি বাংলাদেশের ক্ষেত্রে আরও এক সাফল্য হতে চলেছে। এর ফলে যেমন বাঁচবে যাতায়াতের খরচ, তেমন বাঁচবে সময়ও। খুলনা থেকে মোংলা পর্যন্ত ৬৪ কিমির ব্রডগেজ লাইন নির্মাণের কাজ চলছে এখন।

মোংলা হল বাংলাদেশের অন্যতম সমুদ্র বন্দর। এতদিন এই অংশের সঙ্গে রেল যোগাযোগ ছিল না। এই প্রকল্পের ফলে দেশের রেল মানচিত্রে যোগ হবে নয়া লাইন। বন্দর এলাকা থেকে খুব সহজেই দেশের নানা প্রান্তে পৌঁছে যাওয়া যাবে।

মূলত ভারতের আর্থিক সহায়তায় এই প্রকল্প তৈরি হচ্ছে। করোনা সহ নানা কারণে প্রকল্পের কাজ ধাক্কা খায়। তবে ফের নতুন করে কাজে গতি ফিরেছে। ভারতের ইরকন ইন্টারন্যাশনাল এই প্রকল্পের দায়িত্বে রয়েছে। জানা যাচ্ছে, খুলনা-মোংলা রেললাইন নির্মাণ প্রকল্পের ছোট বড় মিলিয়ে ৩১টি ব্রিজ ও ১০৮টি কালভার্ট নির্মাণকাজ শেষ হয়েছে। গত ২৫ জুন রূপসা ব্রিজ তৈরির কাজও শেষ হয়েছে।

রেলমন্ত্রী সুজনের কথায়, এই প্রকল্পে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল রূপসা সেতু তৈরি করার কাজ। সেখানে রেল লাইন কাজ শেষ হয়ে গেছে। এই প্রকল্প চালু হয়ে মোংলা বন্দর থেকে ব্যবসা বাড়বে। জলপথে বিদেশে আমদানি রফতানির কাজে আরও দ্রুততা আসবে।

বিদেশের প্রবেশিকায় দারুণ স্কোর, কিন্তু ইংরেজিই বলতে পারেন না ভারতীয় যুবকরা! ব্যাপারটা কী

You might also like