Latest News

কর্নাটকে মন্ত্রী হচ্ছেন ২৯ জন, উপমুখ্যমন্ত্রী পদ থাকছে না, জানালেন বোম্মাই

দ্য ওয়াল ব্যুরো : কিছুদিন আগেই বি এস ইয়েদুরাপ্পাকে সরিয়ে কর্নাটকে মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন বাসবরাজ বোম্মাই। বুধবার বোম্মাই জানালেন, এদিন বিকালে রাজ্যে শপথ নেবেন নতুন ২৯ জন মন্ত্রী। তবে ইয়েদুরাপ্পার ছোটছেলে তথা রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতি বি ওয়াই বিজয়েন্দ্র মন্ত্রী হচ্ছেন না। বোম্মাই বলেন, “মন্ত্রিসভার সম্প্রসারণ নিয়ে আমি দিল্লিতে হাইকম্যান্ডের সঙ্গে কথা বলেছি। গত রাতে চূড়ান্ত পর্যায়ের কথা হয়েছে। এদিন সকালে মন্ত্রীদের নাম চূড়ান্ত করা হয়েছে। আমি রাজ্যপালের কাছে তাঁদের নাম পাঠিয়ে দিয়েছি।”

বেঙ্গালুরুতে সাংবাদিক বৈঠকে বোম্মাই বলেন, “এর আগে ইয়েদুরাপ্পা মন্ত্রিসভায় তিনজন উপমুখ্যমন্ত্রী ছিলেন। কিন্তু হাইকম্যান্ড বলেছে, এবার কাউকে উপমুখ্যমন্ত্রী নিয়োগ করা হবে না।” নতুন মন্ত্রীদের মধ্যে সাতজন অন্যান্য পশ্চাৎপদ শ্রেণির, তিনজন তফসিলী জাতিভুক্ত, একজন তফসিলী উপজাতিভুক্ত, সাতজন ভোক্কালিগা, আটজন লিঙ্গায়েত এবং একজন রেড্ডি। একজন মহিলাকেও মন্ত্রী করা হচ্ছে। বিজেপি সূত্রে খবর, নতুন মন্ত্রীদের মধ্যে দু’জন ব্রাহ্মণ আছেন।

গত ১০ জুলাই ইস্তফা দিয়েছিলেন ইয়েদুরাপ্পা। তাঁর ঘনিষ্ঠ এক সিনিয়র নেতা তাঁর পদত্যাগপত্র দিল্লি নিয়ে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে মোদীকে দেন। কিন্তু প্রকাশ্যে ইস্তফা দেওয়া পর্যন্ত সাসপেন্স বজায় রাখেন ইয়েদুরাপ্পা। এমনকী তিনি সর্বোচ্চ  নেতৃত্বের কাছ থেকে নিজের অনুকূলে কোনও সিদ্ধান্তের প্রত্যাশায় ছিলেন বলে একটি সূত্রের দাবি।

মুখ্যমন্ত্রিত্ব ছাড়ার ১০ দিনের মধ্যে মামলায় জড়িয়েছেন ইয়েদুরাপ্পা। আবাসন দুর্নীতি মামলায় আদালতের নোটিশ পাঠানো হয়েছে ইয়েদুরাপ্পার ছেলে তথা বিজেপির রাজ্য সহ-সভাপতি বিওয়াই বিজেয়ন্দ্র, পরিবারের সদস্য, প্রাক্তন মন্ত্রী এসটি সোমশেখর এবং একজন আইএএস অফিসারকেও।

গত ৮ জুলাই বিশেষ আদালতের রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেন টি জে আব্রাহাম নামের এক সমাজকর্মী। সেই আবেদনের ভিত্তিতেই মঙ্গলবার বিচারপতি এস সুনীল দত্ত যাদবের সিঙ্গল বেঞ্চ আবাসন দুর্নীতি মামলায় ইয়েদুরাপ্পার বিরুদ্ধে নোটিস জারি করার নির্দেশ দেয়।

গত মাসে বিশেষ আদালত যখন ইয়েদুরাপ্পার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ সঠিক প্রমাণের অভাবে খারিজ করে দিয়েছিল, সেইসময় কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী পদে আসীন ছিলেন তিনি। পাশাপাশি সেইসময় আর এক অভিযুক্ত সোমশেখরও মন্ত্রী ছিলেন। বেঙ্গালুরু ডেভলপমেন্ট অথরিটির একটি আবাসন প্রকল্পের জন্য একজন ঠিকাদারের কাছ থেকে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে তাঁদের বিরুদ্ধে। ইয়েদুরাপ্পা মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীনই এই বিষয়টি নিয়ে কর্নাটক বিধানসভায় আলোচনা হয়েছিল। সেই সময়েই বিরোধী দলনেতা সিদ্দারামাইয়া তাঁর বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব এনেছিলেন।

You might also like