Latest News

এ বি সি ডি লিখতে পারেনি, ছোট্ট মেয়েকে দেড়ঘণ্টা কান ধরে দাঁড় করিয়ে রাখলেন দিদিমণি!

দ্য ওয়াল ব্যুরো, জলপাইগুড়ি: নার্সারির গণ্ডি সবেমাত্র পেরিয়েছে ছোট্ট মেয়েটা। ক্লাস ওয়ানও হয়নি এখনও। প্রেপের সেই ছাত্রীকেই (Student) দেড়ঘণ্টা কান ধরে দাঁড় করিয়ে রাখার অভিযোগ উঠল স্কুল শিক্ষিকার (Teacher) বিরুদ্ধে। উঠল মারধরের গুরুতর অভিযোগও।

ঘটনাটি ঘটেছে জলপাইগুড়ি (Jalpaiguri) মেহেরুন্নেসা প্রাথমিক ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে (School)। স্কুলটি একটি সরকারি ইংরেজি মাধ্যম বিদ্যালয়। এই স্কুলেই প্রেপ ক্লাসে পড়ে ছোট্ট সেই মেয়ে। অভিযোগ, বুধবার সে রোজকার মতো স্কুলে যায়। স্কুলে শিক্ষিকা তাঁকে এ বি সি ডি লিখে দেখাতে বলেন। কিন্তু মেয়েটি তা লিখতে পারেনি। এরপরেই নাকি রেগে যান ওই দিদিমণি। তিনি বাচ্চাটিকে মারধর করেন বলে অভিযোগ।

শুধু তাই নয়, অভিযোগ, বাচ্চা মেয়েটিকে টানা দেড়ঘণ্টা কান ধরে দাঁড় করিয়ে রাখেন ওই শিক্ষিকা। বাড়ি গিয়ে মায়ের কাছে সবটা খুলে বলে সে। তার মা রিমা দাস সব শুনে স্কুলের ওই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে জলপাইগুড়ি কোতোয়ালি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। তিনি জানিয়েছেন, তিনি আগে স্কুলেই গিয়েছিলেন, কিন্তু স্কুলের শিক্ষিকারা তাঁর কথায় গুরুত্ব দেননি। উল্টে তাঁকে স্কুল থেকে বলা হয়েছে, থানায় গিয়ে অভিযোগ করতে। তাই তিনি পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন।

বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক অভিজিৎ সরকার বলেন অভিযোগ সঠিক নয়। তবে তিনি বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন। এও বলেছেন, যদি স্কুলের তরফে সত্যিই এমন কিছু ভুল হয়ে থাকে, তবে ভবিষ্যতে তা আর যাতে না হয় সে দিকেও নজর রাখা হবে।

এ বিষয়ে ডিআই শ্যামল চন্দ্র দাসের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানিয়েছেন, তিনি এখনও কিছুই জানেন না। তবে স্কুলের প্রধান শিক্ষককে তলব করেন তিনি। তদন্তের নির্দেশও দিয়েছেন এসআইকে।

আরও পড়ুন: বাবার হাতেই বারবার ধর্ষিতা, ভেলোরে পুত্রসন্তানের জন্ম দিল অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী

You might also like