Latest News

Jalpaiguri: মদ বিক্রি করতেন বৌদি, ধরল পুলিশ, রাস্তা অবরোধ ঠেকের দেওরদের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মঙ্গলবারের বারবেলায় সে হইহই কাণ্ড জলপাইগুড়ি (Jalpaiguri) ৭৩ মোড়ে। গাছের ডাল ফেলে রাস্তা আটকে (Road Obstract) দিয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে ফুঁসছেন কিছু মানুষ (Public)। অপটু গলায় স্লোগান দিচ্ছেন-রাস্তা আমরা খুলছি না। বৌদির মুক্তি চাই।

ব্যাপারটা কী?

ওই এলাকায় একটি ছোট্ট মতো হোটেল রয়েছে। চা-বিস্কুট, মাছ-ভাত পাওয়া যায় বলেই অনেকে জানেন। কিন্তু অনেকে আবার জানেন, সেখানে মেলে নেশাও (Liquor)। বৌদির কাছে গেলেই মদ পাওয়া যায় বলে অভিযোগ। দুপুর হোক বা রাত—ভরসা বৌদি। ড্রাই ডে বলে কিচ্ছু নেই। চাইলেই হাতের মুঠোয় বোতল।

আরও পড়ুনঃ নাচের তালে প্রকৃতির আবাহন, আন্তর্জাতিক অরণ্য দিবস মাতিয়ে দিলেন ওঁরা

সেই ‘মদ বৌদি’কে এদিন পুলিশ গ্রেফতার করে। কারণ একটাই, অবৈধভাবে মদ বিক্রির অভিযোগ। কিন্তু তাঁর ঠেকের দেওররা মানবিক হয়ে রাস্তা অবরোধ করে বসলেন।

দাবি কী?

বৌদিকে ছাড়তে হবে। কেন? বৌদির একটি ছোট বাচ্চা রয়েছে। পুলিশ এত অমানবিক! একটা বাচ্চার কাছ থেকে তার মাকে নিয়ে চলে গেল? আমরা কিচ্ছু জানি না, বৌদিকে ছাড়তে হবে, নইলে অবরোধ চলবে।
অবরোধকারীদের একজন নবদ্বীপ রায় সংবাদমাধ্যমের সামনে বলেন, “আমাদের বৌদিকে পুলিশ তুলে নিয়ে গেছে।” কেন? জবাবে নবদ্বীপ শিশুর সারল্য নিয়ে বলেন, “লেবার, ড্রাইভার—সবাই বৌদির কাছে এসে মদ খায়। তাই তুলে নিয়ে গেছে।” তাঁর দাবি, ওইটুকু শিশুটা কী করে মাকে ছেড়ে থাকবে?

ঘণ্টা তিনেক অবরোধ চলার পর অবশ্য তা উঠে যায়। সন্ধে পর্যন্ত পুলিশ ওই মহিলাকে আটক করেই রেখেছে। যদিও ওই মহিলার স্বামী ললিত রায় সংবাদমাধ্যমে বলেছেন, “আমরা চা, বিস্কুট, মাছ-ভাত বিক্রি করি। মদ আমরা বিক্রি করি না। ড্রাইভাররা বাইরে থেকে মদ এনে আমার হোটেলে বসে খায়। আর পুলিশ আমার স্ত্রীকে গ্রেফতার করে নিয়ে গেছে।”

You might also like