Latest News

Jalpaiguri: মেয়েকে নিগ্রহ থেকে বাঁচাতে গিয়ে আক্রান্ত শিক্ষক বাবা! ধৃত প্রতিবেশী

দ্য ওয়াল ব্যুরোঃ মেয়েকে শারীরিক নিগ্রহের (Harrashment) হাত থেকে বাঁচাতে গিয়ে প্রতিবেশীর যুবকের হাতে আক্রান্ত শিক্ষক বাবা। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে জলপাইগুড়ি (Jalpaiguri) শহরে। জলপাইগুড়ি গোমস্ত পাড়া এলাকার বাসিন্দা প্রবীর দাশগুপ্তের মেয়ে পৃথা দাশগুপ্তকে গত কয়েকমাস ধরে লাগাতার কুপ্রস্তাব, অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি, কটুক্তি করত কমলেশ সরকার নামে এক প্রতিবেশী।

এই বিষয়টি নিয়ে আগেও দাশগুপ্ত পরিবার স্থানীয় পঞ্চায়েত ও পুলিশকে জানিয়েছিল। পরবর্তীতে কমলেশ সরকারকে পুলিশ সতর্ক করায় বেশ কিছুদিন চুপচাপ ছিল সে। সম্প্রতি গত কয়েকদিন ধরে আবার নতুন করে একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হতে থাকে। এরপর সোমবার রাতে ফের মদ্যপ অবস্থায় দাশগুপ্ত পরিবারের ওপর চড়াও হয় সেই যুবক।

আরও পড়ুনঃ গলসিতে খুনের বদলা বাড়িতে আগুন, গেল সিআইডি, গ্রেফতার ৩৯

অভিযোগ, মদ্যপ অবস্থায় অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে কমলেশ। এর প্রতিবাদ করায় পৃথার ওপর চড়াও হয়ে মারধর শুরু করে কমলেশ ও তার পরিবারের অন্যান্য লোকেরা। ঠিক সেই সময় মেয়েকে বাঁচাতে গিয়ে আক্রান্ত হন প্রবীরবাবু। উল্লেখ্য, তিনি জলপাইগুড়ি শহরের অত্যন্ত পরিচিত মুখ। শিক্ষকতার পাশাপাশি দীর্ঘদিন ধরে চিত্র সাংবাদিকতার সঙ্গেও যুক্ত।

সোমবার রাতে তাঁর অভিযোগ পেয়ে তড়িঘড়ি তদন্তে নামে জলপাইগুড়ি কোতোয়ালি থানার পুলিশ। এরপরই গ্রেফতার করা হয় কমলেশ সরকারকে। সরকারি আইনজীবী জানিয়েছেন, ধৃতের ১৪ দিনের জেল হেফাজত দিয়েছে আদালত। তবে তার দিদি ছায়া সরকার পলাতক। তার খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ।  

আরও পড়ুনঃ বাইকে এসে বোমা ছুড়ে পালাল দুষ্কৃতীরা, ইছাপুরে তৃণমূল নেতার বাড়ির সামনে হুলস্থূল

পৃথার অভিযোগ, “কমলেশ সরকার প্রায় প্রতিদিনই মদ্যপ অবস্থায় উত্যক্ত করত তাঁকে। নানারকম কুপ্রস্তাব দিত। সোমবার রাতেও একই ঘটনা ঘটায় সে। আমি প্রতিবাদ করতেই কমলেশ ও তার দিদি দুজনেই আমার ওপর চড়াও হয়। আমাকে মারতে থাকে।  বাবা আমাকে বাঁচাতে এলে বাবাকেও মারে।”

You might also like