Latest News

Jalpaiguri: জলপাইগুড়িতে বট-পাকুড়ের বিয়ে! পাত পেড়ে খেল পাঁচ হাজার মানুষ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ঘটা করে বট-পাকুড়ের বিয়ে দিল জলপাইগুড়ির (Jalpaiguri) সেবাগ্রামের বাসিন্দা সন্তোষ শীল। সেই বিয়েতে আবার পাত পেড়ে খাওয়া দাওয়া করল ৫ হাজার মানুষ। বর-কনেকে যৌতুকে দেওয়া হল সোনার গয়না। অভিনব এই বিয়েকে কেন্দ্র করে হইহই কাণ্ড এলাকায়।

জলপাইগুড়ি (Jalpaiguri) সেবাগ্রাম এলাকার দীর্ঘদিনের বাসিন্দা সন্তোষ শীল। এলাকায় সুন্দর ছায়া পাবেন বলে বছর ২৫ আগে শখ করে রাস্তার ধারে একটি বট গাছ (Banyan Tree) লাগিয়েছিলেন।

দীর্ঘ ২৫ বছর পর সেই গাছ যথেষ্ট বড় হয়েছে। এলাকাবাসীরা সন্তোষ বাবুকে বারবার বলতেন মেয়ে তো বড় হয়ে গেছে, এবার বিয়ে দিয়ে দাও। তিনিও শুনতেন আর ভাবতেন কি করা যায়।

অবশেষে একদিন এলাকাবাসীদের কথায় রাজি হয়ে যান সন্তোষ বাবু। কিন্তু একটা বিয়ে দিতে গেলে তো জিনিস কেনা, লোক খাওয়ানো এইসবে প্রচুর খরচ। এছাড়াও লাগবে পাত্রপক্ষ। বিপুল পরিমান খরচে অসমর্থ ছিলেন তিনি। তাই স্থানীয় ক্লাব ‘ভক্ত সংঘ’ মারফৎ গ্রামের মানুষের কাছে সাহায্যের আবেদন রেখেছিলেন।

আরও পড়ুন: হাওড়ার এই স্কুল বিশ্ব সেরার তালিকায়, অভিনন্দন মুখ্যমন্ত্রীর

এরপর শুরু হয় অর্থ সাহায্য তোলা। লোকের মুখে মুখে এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই এগিয়ে আসেন প্রচুর গ্রামবাসী। আসতে থাকে সাহায্যও। পাত্রপক্ষ হিসেবে রাজি হয়ে যান স্থানীয় বাসিন্দা ঝন্টু ঘোষ। এরপর স্থানীয় পুরোহিত মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়কে ডেকে ৯ জুন বিয়ের শুভ দিন ঠিক করা হয়।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে শুরু হয় সমস্ত আচার অনুষ্ঠান। হয় হলুদ কোটা। এরপর কোটা হলুদে তেল সিঁদুর গাছে মাখিয়ে গাছকে স্নান করানোর পর পুরোহিত বিয়ের কাজ শুরু করেন। সন্ধ্যা নামতেই আসে বরযাত্রী। ব্যান্ড বাজিয়ে তাঁদের বরণ করে শুরু হয় বিয়ের অনুষ্ঠান। পরে কন্যাদানের মাধ্যমে শেষ হয় বিয়ে।

বিয়ে উপলক্ষে বিশাল ভোজের আয়োজন করা হয় সেখানে। মেনুতে ছিলো ভাত, ডাল, ভাজা, পটলের ডালনা, পনির, চাটনি, মিষ্টি ইত্যাদি। পাত পেড়ে খাওয়া দাওয়া করেন প্রায় হাজার পাঁচেক মানুষ।

আরও পড়ুন: দারিদ্র নিত্যসঙ্গী, চেষ্টার জোরেই উচ্চমাধ্যমিকে অষ্টম মৈত্রেয়ী-মানালি! স্বপ্নপূরণ হবে কি?

কনে অর্থাৎ বটগাছের বাবা সন্তোষ শীল বলেন, বিয়ে উপলক্ষে আমাদের গ্রামবাসীরা গতকাল রাতে গঙ্গা নিমন্ত্রণ করে। সকাল থেকে হলুদ কোটা সহ বিয়েতে যা যা নিয়ম করতে হয় সব করা হয়েছে। আমি সবার কাছে সাহায্যের আবেদন রেখেছিলাম। সবাই পাশে দাঁড়িয়েছে।

তবে ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা, বট পাকুড়ের বিয়ে আসলে পরিবেশ সংরক্ষণের বার্তা। বট একটা এমন গাছ যে প্রকৃতিকে সবচাইতে বেশি রক্ষা করে থাকে। দূষণ কমানোর ক্ষমতা সব ধরনের গাছের চেয়ে এই গাছের বেশি। একটা পূর্ণ বয়স্ক বট গাছ সব চাইতে বেশি অক্সিজেন দিয়ে থাকে।

You might also like