Latest News

যাদবপুর, প্রেসিডেন্সি যেন ত্রিপুরা, গোয়া! ক্যাম্পাস দখলে ঝাঁপিয়ে পড়েছে তৃণমূলের ছাত্ররা

দ্য ওয়াল ব্যুরো : যাদবপুর (Jadavpur University) ও প্রেসিডেন্সি (Presidency) বিশ্ববিদ্যালয়কে কি ত্রিপুরা ও গোয়া (Tripura and Goa) ধরে নিয়ে এগোচ্ছে টিএমসিপি? গত মঙ্গলবার ক্যাম্পাস খোলার পর এই দুই বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে তৃণমূলের ছাত্র সংগঠনটির অবাক করা অতিসক্রিয়তা নিয়ে শিক্ষা মহলে  জোর চর্চা শুরু হয়েছে।তৃণমূল ছাত্র পরিষদের এক প্রাক্তন নেতার কথায়, সেই লক্ষ্য নিয়েই এগোতে বলা হয়েছে ছাত্র নেতাদের। তবে, সংগঠনের বর্তমান নেতৃত্বের বক্তব্য, ছাত্র স্বার্থে মমতা বন্দ্যোাধ্যায়ের কাজকে হাতিয়ার করে এই দুই ক্যাম্পাস এখন তাদের পয়লা নম্বর টার্গেট। অচিরেই, কন্যাশ্রী, স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ডের মত প্রকল্পগুলি নিয়ে ক্যাম্পাসে প্রচার শুরু করা হবে। যা শুনে শিক্ষা মহলের একাংশের ধারণা, এবার ছাত্র সংসদ নির্বাচনও করাতে পারে রাজ্য। বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনের পরেই রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল ত্রিপুরা এবং গোয়া বিধানসভা দখলের লক্ষ্যে ঝাঁপিয়েছে। দুই রাজ্যে তারা কংগ্রেস এবং বিজেপি শিবিরে থাবা বসিয়েছে এবং প্রতিদিন নিজেদের অস্তিত্ব জাহির করছে ওই দুই রাজ্যে। দেখা যাচ্ছে টিএমসিপিও একই কায়দায় যাদবপুর এবং প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে তাদের অস্তিত্ব জানান দিচ্ছে।

মঙ্গলবার ক্যাম্পাস খোলার প্রথম দিনেই প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে টিএমসিপির সঙ্গে সিপিএমের ছাত্র সংগঠন এসএফআইয়ের জোর বিবাদ হয়। টিএমসিপি সেখানে প্রেসিডেন্সির ঐতিহ্য লেখা লিফলেট বিলি করেছে। প্রেসিডেন্সিতে পুরোপুরি ইংরিজিতে লিফলেটের চল ছিল না। বাংলা ও ইংরেজিতে লেখা লিফলেট বিলি হত। তাছাড়া, লিফলেটের চলও বলতে গেলে উঠে গিয়েছিল এই ক্যাম্পাসে। টিএমসিপি সেটা ফেরাল পুরোমাত্রায়।

এই এলিট বিশ্ববিদ্যালয়ে এখনও পর্যন্ত তাদের শক্তি একেবারেই নগণ্য। হাতেগোনা কয়েকজন ছাত্রছাত্রী লিফলেট বিলি করছে। ক্যাম্পাসের ভেতরে এবং বাইরে মিলিয়ে জনা পাঁচ-ছয় হবে। তবে ক্যাম্পাস খোলার পর থেকে তিনদিনই টিএমসিপি লিফলেট বিলি করে চলেছে।বৃহস্পতিবার তারা প্রেসিডেন্সির গেটে টিএমসি ঝাণ্ডা লাগিয়ে দেয়।সূত্রের খবর, প্রেসিডেন্সি ছাত্র সংসদ এসএফআই পাল্টা প্রস্তুতি নিচ্ছে তৃণমূলকে মোকাবিলা করতে। এর ফলে করোনাকালে ক্যাম্পাস উত্তপ্ত হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিচ্ছে তাই-ই শুধু নয় সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা উড়িয়ে দিচ্ছে না সংশ্লিষ্ট মহল।

কলেজ যেন ছোটদের স্কুল, ছুটি পর্যন্ত গেটের বাইরে সন্তানের অপেক্ষায় বাবা-মায়েরা

বৃহস্পতিবারই যাদবপুর ক্যাম্পাস উত্তপ্ত হয়ে ওঠে টিএমসিপির একটি পোস্টারে কালি ছেটানোর অভিযোগ ঘিরে। ক্যাম্পাস খোলার দিন থেকেই সেখানে টিএমসিপি হেল্প ডেস্ক খুলে বসেছে। সেখান থেকে ছাত্র-ছাত্রীদের মাস্ক, স্যানিটাইজার ইত্যাদি বিলি করছে তারা। প্রেসিডেন্সির তুলনায় যাদবপুরের তৃণমূলের ছাত্রসংগঠনের শক্তি খানিক বেশি। ক্যাম্পাস খোলার পর থেকেই ছাত্রসংগঠনগুলো নিজেদের অস্তিত্ব জাহির করা শুরু করেছে। কারণ কলেজগুলিতে নতুন ছাত্র-ছাত্রী এসেছে।  টিএমসিপি এইদিন যাদবপুর ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ অবস্থান করে। তাদের অভিযোগ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি দেওয়া পোস্টারে কালি ছেটানো হয়েছে। তাদের অভিযোগের আঙুল এসএফআইয়ের দিকে। আর্টস ফ্যাকাল্টির ছাত্র সংসদ রয়েছে সিপিএমের ছাত্র সংগঠনের দখলে।শিক্ষামহলে জল্পনা শুরু হয়েছে, এই দুই ক্যাম্পাস তৃণমূল এবার পরিকল্পিতভাবে এগোচ্ছে।  ইতিমধ্যে তারা প্রেসিডেন্সিতে এসএফআই ও আইসি এবং যাদবপুরে ফেটসু এবং  এসএফআইয়ের মধ্যে ভাঙন ধরাতে জোর তৎপরতা শুরু করেছে। এমনও শোনা যাচ্ছে এই দুটি ক্যাম্পাস পরিদর্শনে যেতে পারেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু।  তবে তার সফর হবে পুরোপুরি সরকারি। করোনাকালে ক্যাম্পাসে কী ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে সেগুলি একবার তিনি সরেজমিনে খতিয়ে দেখতে যেতে পারেন। টিএমসিপি র নেতৃত্বর সঙ্গে ক্যাম্পাস খোলার আগেই ব্রাত্যর বৈঠক হয়েছে।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা ‘সুখপাঠ’

You might also like