Latest News

থানার মেজোবাবুকে পেটানো দরকার’, কেষ্টর দলে নাম লেখালেন আইএসএফ নেতা

দ্য ওয়াল ব্যুরো, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: পঞ্চায়েত ভোট যত এগিয়ে আসছে নেতাদের মুখ থেকে তত‌ই গরম গরম কথার বের হচ্ছে। এবার দলের প্রধানের সামনেই মঞ্চ থেকে পুলিশ পেটানোর ডাক দিলেন আইএস‌এফ নেতা (ISF Leader)! বৃহস্পতিবার বিকেলে ভাঙড়ের (Bhangor) ঘটকপুকুর বাজারের ঘটনা। আইএস‌এফ নেতা আসাদুল মোল্লা যখন মাইক ধরে পুলিশ পেটানোর কথা বলছেন, সেই সময় মঞ্চে ছিলেন আইএস‌এফ প্রধান তথা ভাঙড়ের বিধায়ক ন‌ওশাদ সিদ্দিকি।

এদিন ঘটকপুকুর বাজারে প্রতিবাদ সভার ডাক দিয়েছিল আইএস‌এফ। সেখানে বক্তবা রাখতে গিয়ে দলের প্রাণগঞ্জ অঞ্চল সভাপতি আসাদুল মোল্লা বলেন, “এখানকার থানার মেজোবাবুকে পেটানোর দরকার আছে। আজকে ছাড় দেওয়া হল। দ্বিতীয়দিন এমন হলে আমি নিজে পেটাব। কথা দিয়ে যাচ্ছি মেজোবাবুকে নিজে পেটাবো, দায়িত্ব আমার।”

আইএস‌এফ নেতার এই মন্তব্যের জেরে যথারীতি বিতর্ক শুরু হয়েছে। তৃণমূলের পক্ষ থেকে আইএস‌এফ নেতার এই মন্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করা হয়েছে। ভাঙড়ের তৃণমূল নেতা বাহারুল ইসলাম বলেন, “ধর্মকে সামনে রেখে ওরা অরাজকতা সৃষ্টি করতে চাইছে। এদের থেকে এর চেয়ে বেশি আর কী আশা করব। ধিক্কার জানাচ্ছি।”

মালদহের নদী থেকে উদ্ধার ন’ফুটের কুমির! ১৫ দিন ধরে নজর রাখছিল বনদফতর

দলের নেতার মন্তব্য সমর্থন করেননি ন‌ওশাদ সিদ্দিকি‌ও। এই মত আইএস‌এফের নয় দাবি করে তিনি বলেন, “অবাঞ্চিত বক্তব্য, সামর্থন করি না। এই ধরনের বক্তব্যের সঙ্গে আইএসএফের কোন‌ও সম্পর্ক নেই। আগামীদিনে কেউ যদি এই ধরনের বক্তব্য আইএসএফের মঞ্চ থেকে দেয়, তবে তাঁর সঙ্গে রাজনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করা হবে।”

তবে বঙ্গ রাজনীতিতে এই ধরনের বক্তব্য নতুন নয়। বীরভূমের জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল নিজে এক সময় পুলিশকে ‘বোম মারতে বলেছিলেন’। বাম জামানায় অনিল বসু, মজিদ মাস্টারদের ভূমিকা‌ও ভুলে যায়নি রাজ্যবাসী। সেই তালিকাতেই এবার নাম তুললেন রাজ্য বিধানসভার নবীনতম দলের এই সদস্য।

You might also like