Latest News

ক্ষমতায় ফিরলে ভারত থেকে জমি ফেরত! হুমকি প্রাক্তন নেপালি প্রধানমন্ত্রীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভারতকে হুমকি (threat) নেপালের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলির (nepal) (ex-pm) (oli)। তাঁর দল কমিউনিস্ট পার্টি অব নেপাল (ইউনিফায়েড মার্ক্সিস্ট-লেনিনিস্ট) ক্ষমতায় ফিরলে ভারতের (india) হাত থেকে কালাপানি, লিম্পিয়াধুরা ও লিপুলেখ ভূখণ্ড (land) ফেরত নেবেন বলে শপথ ওলির।

নেপাল ও ভারতের মধ্যে অনেকদিন ধরেই কালাপানি ঘিরে বিতর্ক (controversy) (dispute)আছে। ভারতের দাবি, সীমান্ত এলাকা কালাপানি উত্তরাখন্ড প্রদেশের পিথোরগড় জেলার অংশ।  আর কালাপানিকে ধরচুলা জেলার অংশ বলে দাবি করে থাকে নেপাল।  লিপুলেখ কালাপানির কাছেই পশ্চিমদিকে হিমালয়ের দিকে যাওয়ার রাস্তায় পড়ে।

চিতওয়ানে পার্টির দশম কনভেনশনের সূচনা করে ওলি জানান, শাসন ক্ষমতায় ফিরলে আলোচনার মাধ্যমে ভারতের হাত থেকে লিম্পিয়াধুরা, কালাপানি, লিপুলেখের মতো বিতর্কিত জমি ফেরত নেব। প্রতিবেশীদের সঙ্গে বিবাদ নয়, আলোচনার রাস্তাতেই সমস্যা মেটাতে চাই।

২০১৯ এর নভেম্বরে নয়াদিল্লি একটি সংশোধিত মানচিত্র প্রকাশ করা যাতে নবগঠিত কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জম্মু  কাশ্মীর ও লাদাখকে দেখানো হয়েছে। তিনটি ভূখণ্ডকে পিথোরাগড়ের অংশ বলে দেখানো হয়। এতে চটে যায় নেপাল। ২০২০র ৮ মে ভারত লিপুুলেখ হয়ে কৈলাস মানসরোবরের সংযোগকারী একটি রাস্তার উদ্বোধন করলে দুদেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক আরও  ধাক্কা খায়। নতুন রাস্তাটি তাদের ভূখন্ডের ভিতর দিয়ে গিয়েছে বলে তার উদ্বোধনের বিরোধিতা করে নেপাল। কিছুদিন বাদে নেপালও একটি সংশোধিত নতুন মানচিত্র প্রকাশ করে যাতে লিপুলেখ, কালাপানি, লিম্পিয়াধুরাকে তাদের এলাকা হিসাবে দেখায় তারা। ভারত তার তীব্র প্রতিবাদ করে। গত বছর জুনে নেপালের পার্লামেন্টে নতুন মানচিত্রটি অনুমোদিত হয় যাতে ভারতের দাবি করা ভূখন্ডকে নেপালের বলে দেখানো হয়েছে। ভারত কঠোর প্রতিক্রিয়া দিয়ে জানায়, একতরফা আচরণ করেছে নেপাল।  এমন কৃত্রিম ভূখণ্ড নিজেদের বলে বাড়িয়ে দেখালে তা কোনওদিনই  ভারত মানবে না বলেও জানিয়ে দেওয়া হয়।

 

 

 

 

You might also like