Latest News

আট তলা থেকে পড়ে যাওয়া সুজিতের মৃত্যু, শেষরক্ষা হল না

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শেষরক্ষা হল না। টানা পাঁচ ঘণ্টা মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে হার মানলেন লেকটাউনের সুজিত (INK Sujit Death)। শনিবার সকালে মল্লিকবাজারের ইনস্টিটিউট অফ নিউরোসায়েন্সেস কলকাতার (ink) ৮ তলার কার্নিশে থেকে ঝাঁপ দেন তিনি। নীচে পড়ে বুকে, মাথায়, পায়ে চোট পান। শনিবার সন্ধ্যায় আইএনকেতেই মারা যান তিনি।

হাসপাতাল সূত্রে খবর, শনিবার সন্ধ্যে সাড়ে ছয়টা নাগাদ মৃত্যু হয় ৩৩ বছরের ওই যুবকের। নার্ভের সমস্যা নিয়ে ভর্তি হয়েছিল এই যুবক। চিকিৎসা চলছিল তাঁর। আজ, অর্থাৎ শনিবারই তাঁর ছাড়া পাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তার আগেই ঘটে যায় এই দুর্ঘটনা। পথ চলতি ও স্থানীয়রা জালনা দিয়ে বেরিয়ে আট তলার কার্নিশে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখেন তাঁকে। সুজিতকে ওখান থেকে নামানোর জন্য আসে দমকলও। কিন্তু নামানো যায়নি তাঁকে। একটা সময় নীচে পড়ে যান তিনি।

তৎক্ষণাৎ রক্তাক্ত অবস্থায় আইটিইউতে ভর্তি করা হয়েছিল তাঁকে। দীর্ঘ পাঁচ ঘণ্টা মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে হেরে যান তিনি। বিকেলের দিকে অবস্থার অবনতি হওয়ায় ভেন্টিলেশনে স্থানানতরিত করা হয়। সেখানেই সন্ধেবেলা মারা যান তিনি।

জানা গেছে, সুজিতের স্ত্রী কিছুদিন আগেই মারা গিয়েছেন, এখনও তার এক মাস হয়নি। ব্লাড ক্যানসারে আক্রান্ত ছিলেন সুজিতের স্ত্রী। স্ত্রীর মৃত্যুর পরেই শারীরিক অসুস্থতার লক্ষণ দেখা যায় সুজিতের মধ্যেও। ঘনঘন খিঁচুনি উঠছিল তাঁর। চিকিৎসকদের পরামর্শ নিয়ে তাঁকে আইএনকে-তে ভর্তি করেন আত্মীয়রা। সেখানেই চিকিৎসা চলছিল। বাড়িতে তাঁর মা ও সন্তান ছিল।

মৃত্যুর খবর জানতেই শোকের ছায়া নেমে আসে সুজিতের পরিবারে। তবে এই ঘটনা নিয়ে ইতিমধ্যেই হাজারো প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। হাসপাতালের গাফিলতি থেকে শুরু করে নিরাপত্তার অভাব নিয়েও প্রশ্ন তুলছেন অনেকে। যদিও এদিন বিকেলে সাংবাদিক বৈঠক করে হাসাপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, “বেড স্ক্রু দিয়ে ভোল্ট কেটে জালনা দিয়ে বেরিয়ে পড়েন সুজিত। সকাল ১১ টা নাগাদ এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন তিনি।” তবে নজরদারি কি ছিল না? কর্তৃপক্ষের তরফে স্বীকার করে নেওয়া হয়েছিল যে, সবসময় নার্সিং স্টাফ থাকেন না, সেই সুযোগ কাজে লাগিয়েই জালনা খুলে বেরিয়ে পড়েছিলেন তিনি।

ইতিমধ্যেই এই ঘটনার রিপোর্ট তলব করেছে রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর। কীভাবে এমন একটা ঘটনা শহরের বুকে ঘটে গেল, কীভাবে কার্নিশে এসে পৌঁছলেন ওই রোগী, কেনই বা এতক্ষণ চেষ্টা সত্ত্বেও তাঁকে নামিয়ে আনা গেল না সেসব জানতে চাওয়া হয়েছে। সূত্রের খবর ডিরেক্টর অফ হেলথ সায়েন্স তথা ডিএইচএস-কে পুরো বিষয়টা আইএনকে-র কাছ থেকে জানতে বলা হয়েছে।

ব্লাড ক্যানসারে কিছুদিন আগেই মারা গেছেন স্ত্রী, সেই থেকেই অসুস্থ আইএনকে-র সুজিত



You might also like