Latest News

ব্লাড ক্যানসারে কিছুদিন আগেই মারা গেছেন স্ত্রী, সেই থেকেই অসুস্থ আইএনকে-র সুজিত

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শনিবারের বারবেলায় ভয়ঙ্কর কাণ্ড ঘটে গেছে তিলোত্তমার বুকে। ব্যস্ত রাস্তার ধারে হাসপাতালের ৮ তলা থেকে পড়ে গেছেন রোগী। নার্ভের সমস্যা নিয়ে কিছুদিন আগেই মল্লিকবাজারের ইনস্টিটিউট অফ নিউরোসায়েন্সে (INK) ভর্তি হয়েছিলেন তিনি। এখন হাসপাতালের ভেন্টিলেশনে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন বছর বত্রিশের সুজিত অধিকারী।

সুজিত লেকটাউনের বাসিন্দা। জানা গেছে, গত কয়েকদিন ধরেই খিঁচুনি হচ্ছিল তাঁর। নার্ভের অসুখ হয়েছিল। অসুস্থ অবস্থায় তাঁকে মল্লিকবাজারের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। সেখানেই এদিন সকালে ৮ তলার জানলা বেয়ে কার্নিশে পৌঁছে গিয়েছিলেন সুজিত। নীচে লোকজনের দিকে তাকিয়ে হাত নাড়ছিলেন। কিছুতেই তাঁকে নামিয়ে আনা যাচ্ছিল না।

জানা গেছে, সুজিতের স্ত্রী কিছুদিন আগেই মারা গিয়েছেন, এখনও তার এক মাস হয়নি। ব্লাড ক্যানসারে আক্রান্ত ছিলেন সুজিতের স্ত্রী। স্ত্রীর মৃত্যুর পরেই শারীরিক অসুস্থতার লক্ষণ দেখা যায় সুজিতের মধ্যেও। ঘনঘন খিঁচুনি উঠছিল তাঁর। চিকিৎসকদের পরামর্শ নিয়ে তাঁকে আইএনকে-তে ভর্তি করেন আত্মীয়রা। সেখানেই চিকিৎসা চলছিল। সূত্রের খবর তাঁকে শনিবার বা রবিবারই হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হত।

৮ তলা থেকে পড়ে গিয়ে সুজিত এখন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন। ভেন্টিলেশনে চিকিৎসা চলছে তাঁর। সুজিতের বাড়িতে রয়েছেন তাঁর বৃদ্ধা মা। তাঁর দুই সন্তানও রয়েছে।

এর আগে বাড়িতে কখনও এমন কোনও অস্বাভাবিক আচরণ সুজিত করেননি, তেমনটাই জানিয়েছেন তাঁর আত্মীয়রা। কেন এদিন হঠাৎ এমন করলেন ভেবে পাচ্ছেন না কেউ। শনিবারের ঘটনায় প্রশ্ন উঠেছে প্রশাসনের ভূমিকা নিয়েও। দেড়ঘণ্টা ধরে কার্নিশে আটকে ছিলেন ওই যুবক। দমকল, পুলিশ কেউ কেন তাঁকে নামাতে পারল না, কেন সুজিতের পড়ে যাওয়া দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখতে হল সকলকে তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। এ ব্যাপারে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে রিপোর্ট তলব করেছে স্বাস্থ্য দফতর।

You might also like