Latest News

ছবির বাড়ি দুটি কার বাসভবন, জানেন কি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: উপরে যে দুটি ছবি দেখতে পাচ্ছেন জানেন কি ওই বাড়ির মূল বাসিন্দা কে? এই প্রশ্নের উত্তরে আসার আগে জেনে নেওয়া যাক কোথায় আছে এই বিলাসবহুল প্রসাদ দুটি। একটি হায়দরাবাদে ও অপরটি হিমাচল প্রদেশে। কিন্তু বাড়ি দুটির আলাদা বৈশিষ্ট্য আছে। (Rasthrapati Bhavan)

আপনি চাইলেই এই প্রাসাদে পৌঁছাতে পারবেন না। তার আগে পেরোতে হবে বিশাল নিরাপত্তার জাল। হবে নাই বা কেন, এই দুটি বাড়িই হল রাষ্ট্রপতি ভবন! হ্যাঁ, দিল্লির রাইসিনা হিলস ছাড়াও দেশে দুই রাষ্ট্রপতি ভবন রয়েছে। যেখানে বছরে অন্তত একবার রাষ্ট্রপতিকে গিয়ে থাকতে হয়।

জেনে নেওয়া যাক এই দুই রাষ্ট্রপতি ভবন সম্পর্কে কিছু তথ্য—

হায়দরাবাদের রাষ্ট্রপতি ভবন (Rashtrapati Bhavan in Hyderabad)

৯২ একর জমির ওপর অবস্থিত এই ভবন। তার মধ্যে মূল প্রাসাদটি আছে ৩৫ একর জমির ওপর। বাকি জমি জুড়ে রয়েছে ফুলের ও সবজির বাগান। হায়দরাবাদের বোল্লারামে অবস্থিত এটি। ১৮৫০ সালে তৈরি হয় এই ‘রাষ্ট্রপতি নিলয়’টি। নিজাম নাসির-উদ্দিন-দৌহলের আমলে তৈরি হয় ভবনের। তাঁর রাজত্ব যাওয়ার পরে এখানেই নিজাম সরকারের প্রধান মিলিটারি অফিস হয়েছিল।

Image - ছবির বাড়ি দুটি কার বাসভবন, জানেন কি

সাধারণত শীতকালে রাষ্ট্রপতি যান এই ভবনে। অনন্ত দু’সপ্তাহ থাকেন এখানে। কী কী আছে ভবনে?

৩৫ একর জমির ওপর তৈরি এই প্রাসাদ তিনটি ভাগে বিভক্ত। রাষ্ট্রপতি উইং, পারিবারিক উইং ও এডিসি উইং। এই ভবনে ২০টি বিশালাকৃতির ঘর আছে। তারমধ্যে আছে সিনেমা হল, ডাইনিং হল, দরবার হল সহ একাধিক বিশেষ বিশেষ ঘর।

এই ভবনের একটি বিশেষত্ব রয়েছে। ডাইনিং রুমে সঙ্গে কিচেন যুক্ত আছে একটি টানেলের মধ্যে দিয়ে। কর্মীরা এই টানেলের মধ্যে দিয়ে আসা যাওয়া করেন।

সাধারণ মানুষও এই ভবন পরিদর্শন করতে পারেন। বছরের এক নির্দিষ্ট সময়ে এই ভবনের দরজা সাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হয়। প্রতিবছর ২ জানুয়ারি থেকে ১০ জানুয়ারি পর্যন্ত সাধারণ মানুষের প্রবেশের অনুমতি থাকে। সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা অবধি যেতে পারবেন আপনি। তাহলে, আপনি যদি ওই সময়ে হায়দরাবাদে ঘুরতে যান, অবশ্যই ঘুরে আসতে পারেন রাষ্ট্রপতি ভবনে।

শুধু হায়দরাবাদে নয়, হিমাচল প্রদেশেও আছে একটি রাষ্ট্রপতি ভবন (Rashtrapati Niwas)

১১০ একর জমির ওপর তৈরি এই রাষ্ট্রপতি ভবনটি। ভাইসরিগাল লজ ও বোটানিক্যাল গার্ডেন নামে পরিচিত এটি। হিমাচল প্রদেশে পর্যটকদের একটি অন্যতম দর্শনীয় স্থান। ব্রিটিশদের হাতে তৈরি এই প্রাসাদটি। ১৮৮০ সালে এই ভবন তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। শেষ হয় ১৮৮৮ সালে। প্রথমে এই ভবনটি স্থাপিত হয়েছিল ৩৩১ একরে। তবে পরে সেটি কমে দাঁড়ায় ১১০ একরে। হেনরি আইরিন নামে এক ব্যক্তি এই ভবনের নকশা নানান।

Image - ছবির বাড়ি দুটি কার বাসভবন, জানেন কি

১৯৬০ সাল নাগাদ রাষ্ট্রপতি সর্বপল্লি রাধাকৃষ্ণন ও তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরু ঠিক করেন এটিকে রাষ্ট্রপতি ভবন করার কথা। তবে সপ্তাহের সোমবার বাদে প্রতিদিনই ঢোকা যায়। সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা।

স্থাপত্য ও ভাস্কর্যের দিক থেকে এই ভবন অনন্য। এই একটি ভবনের মধ্যেই আছে বহু ঘর। খাবার ঘর থেকে শুরু করে ডাইনিং, কিচেন সবই বর্তমান। একটি রাষ্ট্রপতি ভবনে যা যা থাকা প্রয়োজন সবই আছে। প্রাসাদ ছাড়াও আছে অপূর্ব বাগান। সেই বাগানের টানেই বারবার পর্যটকরা ফিরে আসেন এখানে। বছরে অন্তত একবার রাষ্ট্রপতি এখানে এসে কিছুদিনের জন্য থেকে যান।

ভারতের রাষ্ট্রপতির বেতন কত? আর কী কী সুবিধা পান

You might also like