Latest News

রাজকোষ ঘাটতির তথ্য দিয়ে বোঝাই যাবে না ভারতীয় অর্থনীতির হাল কত খারাপ : রঘুরাম রাজন

দ্য ওয়াল ব্যুরো : দেশের রাজকোষ ঘাটতি নিয়ে সম্প্রতি উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন অনেকে। কিন্তু রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রাক্তন গভর্নর রঘুরাম রাজন বলেন, শুধু রাজকোষ ঘাটতি দিয়েই বোঝা যাবে না, দেশের আর্থিক অবস্থা কতদূর খারাপ। অর্থাৎ তিনি বলতে চেয়েছেন, রাজকোষ ঘাটতি দেখে অর্থনীতির অবস্থা যত খারাপ মনে হয়, বাস্তবে অবস্থা তার চেয়ে বেশি শোচনীয়। রাজনের মতে, এশিয়ার তৃতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির হাল আর কিছুদিনের মধ্যেই উদ্বেগজনক অবস্থায় পৌঁছে যেতে পারে।

আমেরিকার ব্রাউন ইউনিভার্সিটিতে ও পি জিন্দাল ভাষণ দেওয়ার সময় রাজন বলেন, ভারতীয় অর্থনীতির নানা স্তরে এখন অনিশ্চয়তা ছড়িয়ে পড়েছে। এর ফলে তার হাল হয়ে উঠছে আরও খারাপ। অর্থনীতির তেজি ভাব যখন বজায় ছিল, তখনকার তুলনায় বর্তমানে বিকাশের হার যথেষ্ট কমেছে। ২০১৬ সালের প্রথম ত্রৈমাসিকেও বিকাশের হার ছিল নয় শতাংশ। চলতি আর্থিক বছরের প্রথম ত্রৈমাসিকে তা হয়ে দাঁড়িয়েছে পাঁচ শতাংশ। তার পরের ত্রৈমাসিকে হয়েছে ৫.৩ শতাংশ। গত অগস্টে শিল্পোৎপাদনও কমেছে গত সাত বছরের তুলনায় সবচেয়ে বেশি। এখন তার বিকাশের হার দাঁড়িয়েছে মাইনাস ১.১ শতাংশ।

মুডি’স সম্প্রতি জানিয়েছে, ২০১৯-২০ সালের আর্থিক বছরে ভারতের মোট জাতীয় উৎপাদন বাড়বে ৫.৮ শতাংশ হারে। এর আগে মুডি’স ভেবেছিল, বিকাশ হবে ৬.২ শতাংশ হারে। দেশে বিভিন্ন পণ্যের চাহিদা কমেছে। সেজন্য বিনিয়োগ হয়েছে আগের চেয়ে কম। কর্মসংস্থানও কমেছে। সামগ্রিকভাবে গ্রামীণ অর্থনীতি হয়ে পড়েছে দুর্বল।

রিজার্ভ ব্যাঙ্কও আগে বলেছিল, চলতি আর্থিক বছরে দেশের অর্থনীতি বিকশিত হবে ৬.৮ শতাংশ হারে। এখন বলছে ৬.১ শতাংশের বেশি বিকাশ হওয়া সম্ভব নয়।

রাজনের মতে, ভারতের অর্থনীতিতে দীর্ঘদিন ধরেই কিছু দুর্বলতা আছে। কিন্তু সেই দুর্বলতা কাটানোর চেষ্টা হয়নি। একইসঙ্গে বিকাশের নতুন পন্থা খুঁজে পেতে ব্যর্থ হয়েছে ভারতীয় অর্থনীতি।

পড়ুন, দ্য ওয়ালের পুজোসংখ্যার বিশেষ লেখা…
https://www.four.suk.1wp.in/pujomagazine2019/%e0%a6%a4%e0%a6%be%e0%a6%b9%e0%a7%81-%e0%a6%ab%e0%a6%b2-%e0%a6%90%e0%a6%b6-%e0%a6%b0%e0%a7%8b%e0%a6%b7-%e0%a6%93-%e0%a6%aa%e0%a6%bf%e0%a6%97%e0%a6%ae%e0%a6%bf-%e0%a6%b8%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%9c-2/

You might also like