Latest News

চিনের চেয়েও সস্তায় গাড়ি বানানো যায় ভারতে, টেসলার ইলোন মাস্ককে বলল সরকার

দ্য ওয়াল ব্যুরো : বিশ্ববিখ্যাত বিদ্যুৎচালিত গাড়ি নির্মাতা সংস্থা টেসলাকে বিশেষ ছাড় দিতে তৈরি ভারত। তার ফলে ভারতে টেসলার গাড়ি নির্মাণে খরচ চিনের চেয়ে কম হবে। বুধবার একথা জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় পরিবহণ মন্ত্রী নীতিন গড়করি। কয়েক সপ্তাহ আগেই ভারতে বিনিয়োগ করার জন্য একটি কোম্পানির রেজিস্ট্রেশন করিয়েছেন টেসলার কর্ণধার ইলোন মাস্ক। চলতি বছরের মাঝামাঝি টেসলার ওই সংস্থা কাজ শুরু করবে। একটি সূত্রে খবর, প্রথমে বিদেশ থেকে মডেল থ্রি সেডান গাড়ি আমদানি করবে টেসলা। সেই গাড়ি বিক্রি করা হবে ভারতে।

এদিন গড়করি সাক্ষাৎকারে বলেন, বিদেশ থেকে গাড়ির যন্ত্রাংশ আমদানি করে এদেশে অ্যাসেম্বল করতে চায় টেসলা। তার বদলে ওই সংস্থা যদি এদেশেই গাড়ি উৎপাদন করে, আমরা তাদের অনেক সুবিধা দিতে পারব।

পরে গড়করি বলেন, আমরা নিশ্চিত করব যাতে ভারতে টেসলার গাড়ি বানাতে খরচ সবচেয়ে কম হয়। এমনকি চিনের চেয়েও কম দামে টেসলা এদেশে গাড়ি বানাতে পারবে। তারা এদেশে একবার গাড়ি বানানো শুরু করলেই সরকার এই ব্যাপারটি নিশ্চিত করবে।

বেশ কিছুদিন ধরে ভারত সরকার চেষ্টা করছে যাতে এদেশে বৈদ্যুতিক গাড়ি উৎপাদন করা যায়। ভারতের শহরগুলিতে দূষণের মাত্রা কমানোর জন্যই বৈদ্যুতিক গাড়ির ব্যবহার বাড়াতে চাওয়া হচ্ছে। কিন্তু টেসলা এদেশে গাড়ি বানাবে কিনা তা এখনও পরিষ্কার নয়। টেসলা ভারতে বিনিয়োগের ব্যাপারে কী ভাবছে জানার জন্য তাদের ই-মেল করা হয়েছিল। এখনও সেই মেলের জবাব আসেনি।

ভারতে এখনও পর্যন্ত বৈদ্যুতিক গাড়ির চাহিদা কম। গতবছর দেশে মোট ২৪ লক্ষ গাড়ি বিক্রি হয়। তার মধ্যে বৈদ্যুতিক গাড়ির সংখ্যা ছিল মাত্র পাঁচ হাজার। এদেশে সব জায়গায় গাড়ির ব্যাটারিতে চার্জ দেওয়ার ব্যবস্থা নেই। তাছাড়া ব্যাটারির দামও যথেষ্ট বেশি। তাই ইলেকট্রিক ভেহিকল নিয়ে ক্রেতারা বিশেষ আগ্রহ দেখাচ্ছেন না। সেই তুলনায় চিনে বিকল্প শক্তিতে চলা গাড়ির বিক্রি যথেষ্ট বেশি। ২০২০ সালে চিনে সাড়ে ১২ লক্ষ বিকল্প শক্তিচালিত গাড়ি বিক্রি করেছে টেসলা। তার মধ্যে বিদ্যুৎচালিত গাড়িও আছে। টেসলা বছরে যত গাড়ি বিক্রি করে, তার এক তৃতীয়াংশ কেনে চিনারা।

চিনে রয়েছে বিশ্বের সর্ববৃহৎ গাড়ির বাজার। সেদেশের সরকার ইলেকট্রিক ভেহিকল নিয়ে নির্দিষ্ট পলিসি তৈরি করেছে। চিনের প্রত্যেক গাড়ি নির্মাতা সংস্থাকে বলা হয়েছে, বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাণে কিছু বিনিয়োগ করতে হবে। ভারতে এখনও বৈদ্যুতিক গাড়ি নিয়ে নির্দিষ্ট সরকারি পলিসি তৈরি হয়নি।

You might also like