Latest News

নিজামের শহরে সূর্যের তেজ, বিরাটের নবাবী ব্যাটিংয়ে সিরিজ ভারতের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: একেই বলে লড়াই। শেষ পর্যন্ত টানটান ম্যাচ চলেছে। শেষ হাসি ভারতেরই (India)। অজিদের (Australia) ছয় উইকেটে হারিয়ে ম্যাচ ও সিরিজ রোহিতদের। এরপর প্রোটিয়া বাহিনীর বিপক্ষে সিরিজ শুরু হবে, তার আগে টি ২০ বিশ্বকাপের আগে রোহিতরা ছন্দে ফিরলেন।

যেভাবে ম্যাচ এগিয়েছে স্নায়ুর যুদ্ধ বললে ভুল কিছু হবে না। সূর্যকুমার যাদব (৩৬ বলে ৬৯) ও বিরাট কোহলির (Virat Kohli) অনবদ্য ৬৩ রানের ইনিংসের ওপর ভর করেই জয়। কিন্তু সূর্য যখন গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ফিরলেন, সেইসময় চাপ ছিল বিস্তর।

সেলুলয়েডের ব্রিটিশ ঔদ্ধত্য চুরমার করে ‘প্রতিশোধ’ দীপ্তির, বন্দিত ঝুলনের সতীর্থ

সেই অবস্থা থেকে কোহলির ব্যাটিং একঝলক টাটকা বাতাস। কোহলির সঙ্গে হার্দিকের দুরন্ত ইনিংস ভারতকে জয়ের তীরে পৌঁছে দিয়েছে। শেষে এসে বাজিমাত করে গেলেন হার্দিকই, তিনিই চার মেরে দলকে জিতিয়েছেন। ১৬ বলে ২৫ রান করলেন না, শেষ ওভারে এক বল বাকি থাকতে চার মেরে নিজামের শহরে ভারতের পতাকা ওড়ালেন তিনি। মনে করালেন কপিল দেবকে, তাঁর মতোই অলরাউন্ডার হিসেবেও নিজেকে প্রমাণ করছেন।

কে বলে ওঁরা চরম প্রতিপক্ষ শিবিরের ভেতরে।

মরণবাঁচণ মোকাবিলার শুরুতেই টস জিতে অস্ট্রেলিয়াকে ব্যাট করতে পাঠায় ভারত। রবিবারের ম্যাচে ফের দলে ফিরে আসেন ভুবনেশ্বর কুমার ঋষভের স্থানে। ম্যাচের প্রথম ওভারেই তাঁকে পিটিয়ে ১২ রান তুলে ফেলেন অজি ওপেনার ক্যামেরন গ্রিন। মাত্র ১৯ বলে হাফ সেঞ্চুরি করেন তিনি। শুধু ভুবিই নন, মার খেয়েছেন যশপ্রীত বুমরাও। তিনি চার ওভারে ৫০ রান দেন।

অক্ষর প্যাটেল ও যুজবেন্দ্র চাহাল বিপক্ষের রান তোলার গতি আটকে দেন। পরপর উইকেট হারিয়ে বেশ চাপে পড়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। ব্যর্থ হন গত দুই ম্যাচের নায়ক ম্যাথু ওয়েডও। টিম ডেভিড মাত্র ২৭ বলে ৫৪ রানের ইনিংস খেলে দলকে ১৮৬ রানে পৌঁছে দেন। অক্ষর প্যাটেল তিন উইকেট পান ৩৩ রানে।

১৮৭ রান তাড়া করতে নেমে ৩০ রানে দুই উইকে চলে যায় ভারতের। কেএল রাহুল এক রানে ফেরেন, রোহিত করেন সতেরো রান। চাপে থাকা অবস্থায় দলকে টেনে তোলেন কোহলি ও সূর্যকুমার যাদব। সেঞ্চুরি পার্টনারশিপ গড়ে ভারতকে ম্যাচে ফিরিয়ে আনেন তাঁরা। ২৯ বলে হাফসেঞ্চুরি করেন সূর্য। কোহলির ব্যাটে ৩ বাউন্ডারি ও চারটি ছয়। সূর্য মেরেছেন ৫ চার ও একই সংখ্যক ছয়।

এশিয়া কাপের দুরন্ত ফর্ম রেখে চলেছেন বিরাট। তিনি ছন্দে ফিরেছেন, এটাই আশার কথা। হার্দিক তো অসাধারণ। শুধু দলের বোলারদের নিয়েই চাপ বাড়ছে দলের।

You might also like