Latest News

ডার্বিতে হ্যাটট্রিকের ইতিহাস, আড়াই দশকেই তিনটি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কলকাতা ডার্বির বয়স শতবর্ষ হয়ে গিয়েছে গত বছর। শনিবার আইএসএলের ডার্বিতে হ্যাটট্রিক করেছেন জামশিদ নাসিরির ছেলে একুশ বছরের তরুণ তারকা কিয়ান নাসিরি। যাঁর বাবা জামশিদ ইরানের হলেও কলকাতায় দীর্ঘদিন থাকার সুবাদে ভারতীয় নাগরিকত্বই পেয়েছেন। তাই কিয়ান ভারতীয় হিসেবেই প্রতিষ্ঠা পেলেন।

সুপার সাব হিসেবে নামা এই ফুটবলার ম্যাচের রঙ বদলে দিয়েছেন। সেইসঙ্গে আরও একটি ইতিহাস লেখা হল শনিবাসরীয় সন্ধ্যায় গোয়ার মাঠে। কলকাতা ডার্বির শতাব্দী প্রাচীন ইতিহাসে মোট হ্যাটট্রিক হল চারটি।

১৯৩৪ সালে প্রথম হ্যাটট্রিক

সেবার মোহনবাগানের হয়ে হ্যাটট্রিক করেছিলেন বঙ্গসন্তান অমিয় দেব। তিনি ১৯৩৪ সালে দ্বারভাঙা শিল্ড টুর্নামেন্টে চির প্রতিপক্ষ ইস্টবেঙ্গলের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেছিলেন। তাঁর দল জেতে ৪-১ গোলে। অমিয় দেবই একমাত্র বাঙালি ফুটবলার যাঁর হ্যাটট্রিক রয়েছে ডার্বি ম্যাচে। অমিয় দেবের পরিবার থাকে কলকাতার ঢাকুরিয়াতে।

১৯৯৭ সালের ১৩ জুলাই দ্বিতীয় হ্যাটট্রিক

এটি ছিল ফেডারেশন কাপের সেমিফাইনাল ম্যাচ। ইস্টবেঙ্গলের কোচ ছিলেন প্রয়াত পিকে বন্দ্যোপাধ্যায় এবং ডায়মন্ড ছক নিয়ে বাগানের ডাগআউটে ছিলেন অমল দত্ত। সেই ম্যাচে এক লক্ষ কুড়ি হাজার দর্শক হয়েছিল যুবভারতীতে। ইস্টবেঙ্গলের হয়ে হ্যাটট্রিক করেছিলেন বাইচুং ভুটিয়া। ৪-১ গোলে মোহনবাগানকে হারিয়েছিল ইস্টবেঙ্গল। লাল-হলুদের হয়ে একটি গোল করেছিলেন নাজিমুল হক।

২০০৯ সালের ২৫ অক্টোবর তৃতীয় হ্যাটট্রিক

এটি ছিল জাতীয় লিগের ফিরতি বড় ম্যাচ। এই ম্যাচে মোহনবাগান ৫-৩ গোলে হারিয়েছিল ইস্টবেঙ্গলকে। বাগানের হয়ে একাই চারটি গোল করেছিলেন নাইজেরিয়ান চিডি এডে। অন্য গোলটি এসেছিল মণীশ মাথানির বুট থেকে। এই ম্যাচে মোহনবাগানের কোচ ছিলেন মরক্কোর করিম বেঞ্চেরিফা এবং ইস্টবেঙ্গলের কোচ ছিলেন সদ্য প্রয়াত সুভাষ ভৌমিক।

২০২২ সালের ২৯ জানুয়ারি আইএসএলের ফিরতি লিগে কিয়ান নাসিরির বুটে ডার্বিতে হ্যাটট্রিকের হ্যাটট্রিক হল। তিনি চারনম্বর হ্যাটট্রিক করলেন।

 

আরও কিছু তথ্য একনজরে

এর আগের তিনটি হ্যাটট্রিকের ম্যাচে জয়ী টিম তিনের অধিক গোল পেয়েছিল।

শেষ তিনটি ম্যাচ আড়াই দশকের মধ্যে, ২৫ বছরের ব্যবধানে। ১৯৯৭ সাল থেকে ২০২২ সাল।

কিয়ান নাসিরি একমাত্র ফুটবলার যিনি পরিবর্ত হিসেবে নেমে ডার্বিতে হ্যাটট্রিক করলেন। এর আগের দুটিতে বাইচুং এবং চিডি খেলেছিলেন শুরু থেকে। এমনকি অমিয় দেবও শুরু থেকে খেলেন।

১৯৩৪ সালের পরে ২৫ বছরের মধ্যে প্রথম হ্যাটট্রিকের ডার্বিতে দুই কোচই ছিলেন বাঙালি। দ্বিতীয় ডার্বিতে সুভাষ বাঙালি আর করিম বিদেশি। এবার দুই প্রধানের কোচই বিদেশি।

 

You might also like