Latest News

Imran : পাকিস্তানে জ্বালানির রেকর্ড মূল্যবৃদ্ধি, ভারতের প্রশংসায় ইমরান

দ্য ওয়াল ব্যুরো : পাকিস্তানের শাহবাজ শরিফ সরকার সম্প্রতি পেট্রোপণ্যের দাম বাড়িয়েছে লিটারে ৩০ টাকা করে। এরপরে ভারতের প্রশংসা করলেন সেদেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরান (Imran) খান। তিনি বলেন, ভারত জ্বালানির দাম কম রাখতে সক্ষম হয়েছে। তাঁর মতে, ভারত সস্তায় (Imran) রাশিয়া থেকে তেল কিনছে। তাই ভারতে পেট্রপণ্যের দাম কম। জ্বালানিতে ভরতুকি বন্ধ করার জন্যই একদফায় তেলের দাম অনেক বাড়িয়েছে পাকিস্তান। ইমরানের (Imran) মতে, আইএমএফকে খুশি করার জন্যই ওই পদক্ষেপ নিয়েছে শাহবাজ শরিফ সরকার।

ইমরান (Imran) বলেন, ‘অপদার্থ ও অসংবেদনশীল’ সরকারের জন্যই পাকিস্তানের মানুষকে জ্বালানির বাড়তি দাম দিতে হচ্ছে। রাশিয়া ৩০ শতাংশ কম দামে পাকিস্তানকে তেল বিক্রি করতে চেয়েছিল। কিন্তু শাহবাজ শরিফ সরকার তাতে রাজি হয়নি। কয়েক মাস আগে অনাস্থা প্রস্তাবে হেরে ক্ষমতাচ্যুত হয়েছেন ইমরান। তিনি দাবি করেন, প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন রাশিয়া থেকে সস্তায় তেল কিনতে চেষ্টা করেছিলেন। সেজন্য রাশিয়া সফর করেছিলেন।

শাহবাজ শরিফ সরকারকে ‘ইমপোর্টেড গভর্নমেন্ট’ বা ‘আমদানি করা সরকার’ বলে দাবি করেন ইমরান। তাঁর কথায়, “ইমপোর্টেড গভর্নমেন্ট বিদেশী প্রভুদের অনুগত। আমাদের জাতি তার মূল্য দিচ্ছে। পেট্রল ও ডিজেলের দাম বাড়ানো হয়েছে ২০ শতাংশ। পাকিস্তানের ইতিহাসে আর কখনও এক ধাক্কায় জ্বালানির দাম এত বাড়ানো হয়নি। আমি রাশিয়া থেকে ৩০ শতাংশ কম দামে তেল কিনতে চেয়েছিলাম। কিন্তু অপদার্থ ও অসংবেদনশীল বর্তমান সরকার সস্তায় তেল কিনতে চায় না।”

বৃহস্পতিবার টুইট করে ইমরান বলেন, “ভারতের মতো দেশ আমেরিকার সহযোগী হওয়া সত্ত্বেও রাশিয়া থেকে সস্তায় তেল কিনছে। কিন্তু আমাদের দেশের প্রশাসন এখন চলে গিয়েছে ষড়যন্ত্রীদের হাতে।” গত ২১ মে ভারত জ্বালানির ওপরে শুল্ক কমায়। ফলে পেট্রলের দাম লিটারে সাড়ে নয় টাকা ও ডিজেলের দাম লিটারে সাত টাকা হ্রাস পায়। ইমরান টুইট করে বলেন, “ভারত কোয়াড গোষ্ঠীর সদস্য। কিন্তু আমেরিকার চাপ উপেক্ষা করে তারা রাশিয়া থেকে সস্তায় তেল কিনেছে। মানুষ যাতে মূল্যবৃদ্ধির জন্য কষ্টে না পড়ে, সেজন্যই ওই পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার। আমিও স্বাধীন বিদেশনীতি নিয়ে চলেছিলাম।”

আরও পড়ুন : বুকার পুরস্কার পেলেন গীতাঞ্জলি শ্রী, হিন্দি উপন্যাসের হাত ধরেই এই প্রথম বিশ্বদরবারে সম্মানিত ভারত

You might also like