Latest News

রেগে গেলে হুঁশ থাকে না, অনেককে খুন করতে পারি, হাওড়া হত্যাকাণ্ডে দাবি ধৃত পল্লবীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রেগে গেলে হুঁশ থাকে না, রক্ত উঠে যায় মাথায়! এমনটাই দাবি হাওড়ায় (Howrah) পরিবারের সদস্যদের নৃশংসভাবে হত্যায় (Murder)অভিযুক্ত পল্লবী ঘোষের। ইতিমধ্যেই গ্রেফতার (arrest) করা হয়েছে পল্লবীকে। জেরায় সে জানিয়েছে, রাগ হলে ৪ জন কেন, আরও বেশি জনকেও খুন করতে পারে সে। এমনকি, ভয় পায় না পুলিশকেও।

বৃহস্পতিবার সাত সকালে হাওড়া থানার এমসি ঘোষ লেনে একটি বাড়ির সদর দরজা দিয়ে রক্ত গড়িয়ে আসতে দেখেন এলাকাবাসী। থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে দেখে, রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছেন পল্লবীর শাশুড়ি, ভাসুর, ভাসুরের স্ত্রী এবং মেয়ে। ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে তাঁদের খুন করা হয়েছে বলে অনুমান পুলিশের। বুধবার এই ঘটনা ঘটিয়েই পালিয়েছিল পল্লবী। নিখোঁজ ছিলেন তার স্বামী দেবরাজও।

আজ পল্লবীকে গ্রেফতার করেছে হাওড়া থানার পুলিশ। জেরাতে এমন চাঞ্চল্যকর দাবি করেছে পল্লবী। জানা গেছে, বছর দশেক আগে দেবরাজ ঘোষের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল পল্লবীর। দেবরাজের বাবা শিশির ঘোষ হাওড়া ইমপ্রুভমেন্ট ট্রাস্টে চাকরি করতেন। বড় ছেলে দেবাশিস ও তাঁর স্ত্রী পরিবারের দেখাশোনা করতেন বলে তাঁদের বেশি ভালবাসতেন শিশিরবাবু। অবসরের পর বেশ কিছু টাকা তিনি বড় ছেলে ও তাঁর স্ত্রীকে দিয়েছিলেন বলে জানা গেছে। এই নিয়েই রাগ ছিল দেবরাজ ও পল্লবীর। সম্পত্তি নিয়ে প্রায়ই অশান্তি করত তারা। এমনকি, চলত মারধরও। এই নিয়ে মাসখানেক আগে থানায় অভিযোগ করেছিলেন দেবাশিসবাবু। তারপর কয়েকদিন বন্ধ ছিল অশান্তি। কিন্তু বৃহস্পতিবার রাতে আবার শুরু হয় ঝামেলা। তখনই রাগের মাথায় ৪ জনকে কুপিয়ে খুন করে পল্লবী, জানিয়েছে পুলিশ।

হাওড়ায় ভয়ঙ্কর ঘটনা, বাড়ির চারজনকে কুপিয়ে খুন করে পালাল মহিলা

You might also like