Latest News

জোর করে ব্যবসায়ীর বাড়িতে গেরুয়া রং, বিজেপির মন্ত্রী বললেন, উন্নয়ন হচ্ছে

দ্য ওয়াল ব্যুরো : আমার বাড়িতে জোর করে গেরুয়া রং করে দেওয়া হয়েছে। উত্তরপ্রদেশের প্রয়াগরাজ শহরের এক ব্যবসায়ী এমনই অভিযোগ জানিয়েছেন পুলিশে। তিনি বলেছেন, একদল লোক যখন তাঁর বাড়িতে গেরুয়া রং লাগাচ্ছিল, তখন তিনি বাধা দেন। তারা তাঁকে গালিগালাজ করে। মারধরের হুমকি দেয়। ওই ব্যবসায়ীর বাড়ির অদূরেই বাস করেন উত্তরপ্রদেশের মন্ত্রী নন্দগোপাল নন্দী। তিনি জোর করে বাড়িতে গেরুয়া রং লাগানোকে সমর্থন করে বলেছেন, এখানে উন্নয়নমূলক কাজ হচ্ছে। তাঁর মতে, এ সম্পর্কে বিতর্ক নিষ্প্রয়োজন।

ওই রাস্তার ছবিতে দেখা গিয়েছে, সারি সারি বাড়িতে লাগানো হয়েছে গেরুয়া রং। বাড়ির দেওয়ালে এঁকে দেওয়া হয়েছে ধর্মীয় চিহ্ন। যে ব্যবসায়ী পুলিশে অভিযোগ জানিয়েছেন, তাঁর নাম রবি গুপ্ত। প্রয়াগরাজের বাহাদুরগঞ্জ এলাকায় তিনি থাকেন। রবি গুপ্ত সোশ্যাল মিডিয়ায় এক মিনিটের ভিডিও ক্লিপ পোস্ট করেছেন। তাতে দেখা যায়, একদল লোক বাড়ির বাইরে গেরুয়া রং স্প্রে করছে। একজনকে বলতে শোনা গিয়েছে, “সবাই দেখুন, গুন্ডামি কীভাবে বেড়েছে এই রাজ্যে।”

আর একজনকে দেখা যাচ্ছে, যারা রং লাগাচ্ছিল তাদের বলছেন, “তোমরা এখান থেকে চলে যাও।” কিন্তু তাতে গেরুয়া রং লাগানো বন্ধ হয়নি। একসময় দেখা যাচ্ছে, বাড়ির বারান্দায় যারা দাঁড়িয়েছিল তাদের লক্ষ্য করে গেরুয়া রং স্প্রে করা হচ্ছে। তারা যাতে বারান্দা থেকে ছবি না তুলতে পারে, সেজন্যই ওইভাবে রং স্প্রে করা হয়েছিল।

রবি গুপ্ত অভিযোগ করেছেন, পুরো ঘটনার পিছনে আছেন কমল কুমার কেসরওয়ানি নামে এক ব্যক্তি। তিনি নন্দগোপাল নন্দীর ভাইপো। রবি গুপ্ত পুলিশের কাছে অনুরোধ করেন, “একজন নাগরিক হিসাবে সংবিধান আমাকে যে নিরাপত্তা দিয়েছে, তা যেন ক্ষুণ্ণ না হয়। আমাকে শান্তিতে থাকতে দেওয়া হোক। আমি একজন ব্যবসায়ী। আমাকে যেন কেউ বিরক্ত না করে। আমি আমার বাড়িতে রং লাগাতে বারণ করেছিলাম। কিন্তু জোর করে রং লাগানো হয়েছে।”

মন্ত্রী অবশ্য এই অভিযোগকে ‘ষড়যন্ত্র’ বলে উড়িয়ে দিয়েছেন। তাঁর কথায়, “শুধু গেরুয়া নয়, সবুজ, লাল এমনকি খয়েরি রং-ও লাগানো হয়েছে। কেউ কেউ হয়তো সৌন্দর্যায়ন চায় না। এই সব লোক বিকাশ বিরোধী।”

You might also like