Latest News

মেক ইন ইন্ডিয়ার সাফল্য, দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি ডুবোজাহাজ কাজ শুরু করবে ১০ মার্চ থেকে

দ্য ওয়াল ব্যুরো : ২০১৭ সাল থেকে নৌবাহিনীতে কাজ করছে পাঁচটি কালভারি ক্লাসের ডিজেল ইলেকট্রিক সাবমেরিন। আগামী ১০ মার্চ থেকে তাদের সঙ্গে যোগ দেবে আরও একটি ওই জাতীয় ডুবোজাহাজ। তার নাম আইএনএস কারাঞ্জ। নৌবাহিনীর কম্যান্ডিং অফিসার গৌরব মেহতা বলেন, “আমরা গর্বের সঙ্গে জানাচ্ছি, পুরোপুরি দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি হয়েছে কারাঞ্জ। মেক ইন ইন্ডিয়া স্পিরিটের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে এই ডুবোজাহাজ তৈরি করা হয়েছে।”

শনিবার নৌবাহিনীর ডক ইয়ার্ডে দাঁড় করানো সাবমেরিনটি সাংবাদিকদের ঘুরিয়ে দেখানো হয়। ডুবোজাহাজের মাস্টার চিফ মোতানি সুহেইল বলেন, “সাবমেরিনে প্রতিটি শিফটে ৩৯ জন কাজ করবেন। তাঁদের দীর্ঘ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। তাঁরা টানা কয়েকমাস সাবমেরিনে কাজ করতে পারবেন।” পরে তিনি জানান, যাঁরা সাবমেরিনে কাজ করেন, তাঁরা দীর্ঘদিন সূর্যের আলো দেখতে পান না। বেশি ব্যায়ামও করতে পারেন না। কারণ তাতে সাবমেরিনের ভেতরে কার্বনের পরিমাণ বৃদ্ধি পায়। চার দিন অন্তর তাঁরা স্নান করতে পারেন। তাঁদের শৌচাগার পরিষ্কার করতে হয়। খাওয়ার ব্যাপারেও তাঁরা খুব কড়াকড়ি করেন।

২০১৭ সালে আইএনএস কালভারি ও ২০১৯ সালে আইএনএস কানদেরি নামে দু’টি সাবমেরিন কাজ শুরু করে। কারাঞ্জকে ইতিমধ্যে ১০০ দিন ধরে পরীক্ষা করা হয়েছে। তবে ডুবোজাহাজটি নৌবাহিনীর হাতে তুলে দেওয়ার উপযুক্ত বলে বিবেচনা করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

কালভারি ক্লাসের সাবমেরিনগুলির প্রতিটির একইরকম ক্ষমতা আছে। কিন্তু তাদের ভিন্ন ভিন্ন কাজে ব্যবহার করা হয়। তারা সমুদ্রের বিশেষ বিশেষ জায়গাগুলি পাহারা দেয়, শত্রু জাহাজ যাতে না আসতে পারে সেজন্য মাইন ফিট করে, শত্রুর গোপন তথ্য সংগ্রহ করে এবং নির্দেশ পেলে ভিন দেশের জাহাজের সঙ্গে যুদ্ধ করে। নৌবাহিনীর এক অফিসার জানিয়েছেন, পরমাণু শক্তিচালিত সাবমেরিন অরিহন্তের সঙ্গে কারাঞ্জের তুলনা চলে না। তবে সাধারণ সাবমেরিনগুলি থেকেও কিছু বিশেষ সুবিধা পাওয়া যায়। সেগুলি আকারে পরমাণু সাবমেরিনের চেয়ে ছোট, খুব দ্রুত চলাফেরা করতে পারে এবং উপকূলের অনেক কাছাকাছি যেতে পারে।

রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা মাজাগোন ডক লিমিটেড কালভারি ক্লাসের সাবমেরিন তৈরি করে। এর আগে একটি ফরাসি কোম্পানির সহযোগিতায় ওই সংস্থা ডুবোজাহাজ তৈরি করত। কিন্তু কারাঞ্জ ডুবোজাহাজ নির্মাণের সময় ফরাসি কোম্পানির সাহায্য নেওয়া হয়নি। ওই ডুবোজাহাজের কর্মীদেরও ভারতের নৌবাহিনীর অফিসাররা প্রশিক্ষণ দিয়েছেন।

You might also like