Latest News

মমতার জন্য নবান্নেও গিয়েছিল হাফিজুল, না পেয়ে কালীঘাটে, বলছেন তার বাবা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) বাড়ির পাঁচিল টপকে মধ্যরাতে ঢুকে ঘাপটি মেরে বসেছিল সে। বয়স তার বছর তিরিশ। নাম হাফিজুল মোল্লা (Hafizul Molla)। রবিবার সকালে হাফিজুল ধরা পড়তেই মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠে যায়। তারপর সোমবার আরও মারাত্মক তথ্য সামনে আসে। পুলিশ জানিয়েছে, ধৃত হাসনাবাদের বাসিন্দা হাফিজুলের জামার ভিতরে একটি এক ফুটের লোহার রড লুকনো ছিল। কিন্তু এসব শুনেও হাফিজুলের বাবা যেন নির্লিপ্ত। মঙ্গলবার একপ্রকার নিরুদ্বেগের সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, এটা প্রথম বার নয়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের খোঁজে হাফিজুল এর আগে নবান্নেও (Nabanna) গিয়েছিল।

হাফিজুলের বাবা মইনুল মোল্লা বলেন, “ও একবার নবান্নেও গেছিল। ওখানে তখন বলে অনুমতি ছাড়া ঢোকা যাবে না। কিন্তু আমার ছেলে শোনেনি। জবরদস্তি করে। তারপর ওকে পুলশ ধরেছিল।” তিনি আরও বলেন, “সেই সময়ে পুলিশ আমায় ফোন করেছিল। আমি তাঁদের বলি, স্যর ছেলেটার মাথার ঠিক নেই। তারপর এখন আবার শুনছি মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে চলে গেছে।”

কেন বারবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে পৌঁছতে চাইছে হাফিজুল? উদ্দেশ্যটা কী?

হাফিজুলের বাবা স্পষ্ট করে বলেন, “ওর ব্রেনটা ডিস্টার্ব হওয়ার পর থেকে রাতে বাড়িতে রাখতে পারি না। এখানে ওখানে ঘোরে। একবার হাসনাবাদ থানা ধরেছিল। তখন গিয়ে ওর চিকিৎসার কাগজপত্র চলছে।” এরপরেই সাংবাদিকদের উদ্দেশে কাতর কণ্ঠে হাফিজুলের বাবা বলেন, “একটা কথা বলব স্যার, কিছু যদি মনে না করেন… আমার ছেলে মমতাকে বিয়ে করতে চায়। আপনারা বলুন, এটা কখনও হয়? কিন্তু ওই পাগলকে কে বোঝাবে বলুন দেখি!”

কবে থেকে হাফিজুল বলে এসব কথা?

এ ব্যাপারেও তার বাবা পুরোটা খোলসা করে দিলেন সংবাদমাধ্যমের সামনে। তাঁর কথায়, “একদিন ওর বউ কী করেছে। তখন বউকে বলছে, তোর সঙ্গে থাকব না। আমি মমতাকে বিয়ে করব। যেদিন এ কথা বলেছিল তার পরের দিনই নবান্নের সামনে ওকে আটক করেছিল পুলিশ।” হাসনাবাদ থেকে নবান্নে গেলেন কী ভাবে? হাফিজুলের বাবা এও বলেন যে, “ও তো হাওড়ায় গাড়ি চালাতে যায়।”

হাফিজুলের বাবা জানিয়েছেন, কলকাতার কোনও একটি মানসিক চিকিৎসা কেন্দ্রে তার চিকিৎসা চলছে। কিন্তু যখনতখন যেখানে খুশি চলে যায়। ফলে চিকিৎসাও ঠিক মতো হচ্ছে না।
তবে অনেকের মতে, হাফিজুলের মাথার ব্যমো যা-ই থাকুক তার জন্য তার চিকিৎসা হতে পারে। কিন্তু কী ভাবে সে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ি পর্যন্ত পৌঁছে গেল তা নিঃসন্দেহে উদ্বেগের। আবার তার কাছে লোহার রডও ছিল। দিদিকে ভালবাসার সঙ্গে লোহার রডের ব্যাপারটার কোনও সঙ্গতি নেই।

মমতার বাড়িতে জামার মধ্যে লোহার রড লুকিয়ে ঢুকেছিল হাফিজুল

You might also like