Latest News

৩০ কোটি বছরের পুরনো হাঙরের কঙ্কাল মিলেছিল মেক্সিকোতে, ৭ বছর পরে হল নামকরণ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ২০১৩ সালে গডজিলা শার্ক নামের একটি দৈত্যাকার হাঙরের কঙ্কাল আবিষ্কৃত হয় মেক্সিকো থেকে। গবেষকরা এটাকে ‘ড্রাগাক্রিস্টিস হফম্যানরম’ বা ‘হফম্যান ড্রাগন শার্ক’ হিসেবে নামকরণ করেছেন। ৩০০ মিলিয়ন বা ৩০ কোটি বছর আগে জীবত ছিল শার্কটি। জন পল হোডনেট নামের একজন স্নাতক স্তরের ছাত্র এই ৭ ফুটের জীবাশ্মটিকে মেক্সিকোর আলবুকার্ক থেকে প্রায় ৫০ কিলোমিটার দূরে মানজানো পর্বতমালার কাছ থেকে খুঁজে পান। প্রাথমিক ভাবে জানা গেছে যে, এই আকারের জন্যই এর নাম দেওয়া হয়েছে গডজিলা শার্ক।

হাঙরের দাঁত সম্পর্কে কথা বলতে গিয়ে হোডনেট বলেছিলেন যে “এদের দাঁত শিকারকে ছিদ্র করার পরিবর্তে শিকারকে আঁকড়ে ধরার এবং পিষ্ট করার জন্য দুর্দান্ত।” গবেষকদের মতে, এর দাঁতগুলো প্রথম চিহ্নিত করে যে এটি অন্য কোনও আলাদা প্রজাতি হতে পারে। এনএমএমএনএইচএসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে হাঙ্গরটির ১২টি সারি দাঁত ছিদ্র ছিল এবং তার পিঠে ২.৫ ফুট দীর্ঘ লম্বালম্বি স্পাইন ছিল। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে যে এই বৈশিষ্ট্যগুলি প্রাথমিকভাবে এটিকে ‘গডজিলা শার্ক’ এর জনপ্রিয় উপাধি দিয়েছিল।

হোডনেট এবং একদল বিজ্ঞানী ২০১৩ সালে পাথর এবং উদ্ভিদ, জীবাশ্ম নিয়ে ক্ষেত্র সমীক্ষা করতে পাহাড়ে বেড়াতে এসেছিলেন, আর তখনই তিনি অপ্রত্যাশিতভাবে মুখোমুখি হন এই শার্কের। এনএমএমএনএইচএস হোডনেটর বলেছেন, “আমি কেবল ছুরি ব্যবহার করে শেল চুনাপাথর দিয়ে টুকরো টুকরো করে কাটছিলাম, যখন গাছের টুকরো এবং কয়েকটি মাছের আঁশ ব্যতীত খুব বেশি কিছু খুঁজে পেলাম না। হঠাৎ আমি এমন কিছু আঘাত করলাম যা কিছুটা ছিল ঘন।” এর সঙ্গেই তিনি যোগ করেছেন যে এটি একটি “উত্তেজনাপূর্ণ” ঘটনা ছিল, কারণ “আগে সেই সাইটে কোনও বড় টেট্রপড পাওয়া যায় নি।”

আনুষ্ঠানিক নামকরণটি সংরক্ষণ এবং গবেষণা কাজের সাত বছর পরে ঘোষণা করা হল। এরপরে হোডনেট এবং তাঁর দলটি জানতে পারে যে এটি একটি নতুন ধরণের হাঙর। গডজিলার মতো বৈশিষ্ট্য (বড় চোয়াল এবং বড় মেরুদণ্ড) রয়েছের এর। হফম্যান পরিবারকে সম্মান জানাতে তাঁরা এটিকে নাম দিয়েছে ‘ড্রাকোপ্রিস্টিস হফম্যানরম’ বা ‘হফম্যানের ড্রাগন শার্ক’। উদ্ধারকৃত কঙ্কালটি হাঙ্গরগুলির একটি বিবর্তনীয় শাখার প্রতিনিধিত্ব করে যা আধুনিক হাঙ্গর থেকে প্রায় ৩৯০ মিলিয়ন বছর আগে পৃথিবীতে ছিল।

You might also like