Latest News

পুলিশ বলছে, ডিজেলের পয়সা দাও তবে তোমার মেয়ের খোঁজ করব, অভিযোগ মায়ের

দ্য ওয়াল ব্যুরো : উত্তরপ্রদেশের কানপুরের এক প্রতিবন্ধী মহিলা অভিযোগ করেন, গত মাসে এক আত্মীয় তাঁর মেয়েকে অপহরণ করেছে। তিনি পুলিশে অভিযোগ জানিয়েছিলেন। তাঁকে পুলিশের গাড়িতে ডিজেল ভরার জন্য ১০ হাজার টাকার বেশি দিতে হয়েছে। স্থানীয় পুলিশ তাঁকে বলেছিল, আগে গাড়িতে ডিজেল ভরার টাকা দাও, তবে তোমার মেয়ের খোঁজ করতে যাব।

অভিযোগকারিণী ক্র্যাচ নিয়ে চলাফেরা করেন। তিনি নিজের নাম বলেছেন, গুড়িয়া। সোমবার তিনি কানপুরের পুলিশ সুপারের কাছে স্থানীয় পুলিশের নামে অভিযোগ জানান। কমিশনারের অফিসে মিডিয়াকে বলেন, তিনি বিধবা। তাঁর সামান্য জমিজমা আছে। গত মাসে তিনি পুলিশে অভিযোগ জানান, তাঁর মেয়েকে অপহরণ করা হয়েছে। কিন্তু পুলিশ তাঁকে সাহায্য করেনি।

মহিলা বলেন, পুলিশ মাঝে মাঝে তাঁকে বলত, আমরা তোমার মেয়ের খোঁজ করছি। কখনও থানা থেকে তাড়িয়ে দিত। কখনও গালাগালি দিত। বলত, তোমার মেয়ের নিশ্চয় কোনও দোষ ছিল। নইলে তাকে অপহরণ করল কেন? শেষে তারা মহিলাকে বলে, আমাদের গাড়িতে ডিজেল ভরে দাও, তবে তোমার মেয়ের খোঁজে বেরোব।

অভিযোগকারিণী বলেন, পুলিশ কেবলই তাঁকে বলত, “চল হিঁয়াসে”। তিনি পুলিশকে ঘুষ দেননি। তবে গাড়িতে ডিজেল ভরার টাকা দিয়েছিলেন। পুলিশ চৌকিতে দু’জন পুলিশকর্মী ছিল। তাদের একজন আমাকে সাহায্য করেছিল। অপরজন করেনি।

গুড়িয়া বলেন, পুলিশের গাড়িতে ডিজেল ভরার জন্য তিনি আত্মীয়দের থেকে টাকা ধার করেছিলেন। কীভাবে ধার শোধ করবেন ভেবে পাচ্ছেন না।

গুড়িয়ার সঙ্গে সাংবাদিকদের কথোপকথনের ক্লিপ সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে। নানা মহলে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। কানপুর পুলিশ টুইট করে জানায়, সংশ্লিষ্ট পুলিশ পোস্টের যিনি ইনচার্জ ছিলেন, তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। গুড়িয়ার মেয়ের সন্ধান করার জন্য পুলিশের চারটি টিম গঠন করা হয়েছে। কানপুরের উচ্চপদস্থ পুলিশ অফিসার ব্রজেশ কুমার শ্রীবাস্তব বলেন, “সংশ্লিষ্ট থানার ইনচার্জকে বলা হয়েছে, মহিলার অভিযোগের ভিত্তিতে দ্রুত ব্যবস্থা নিন।”

You might also like