Latest News

লাদাখে চিন ঢুকলে আমরাও তৈরি আছি, জানালেন জেনারেল রাওয়াত

দ্য ওয়াল ব্যুরো : ভারত ও চিনের মধ্যে উত্তেজনা কমানোর সব প্রচেষ্টা যদি ব্যর্থ হয়, তাহলে সেনাবাহিনী তৈরি আছে। রবিবার এমনই মন্তব্য করলেন চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ জেনারেল বিপিন রাওয়াত। এদিন এক সর্বভারতীয় দৈনিককে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে তিনি বলেন, ভারত ও চিনের মধ্যে সেনাবাহিনী স্তরে আলোচনা চলছে। কূটনীতিকরাও কথাবার্তা বলছেন। তা যদি ব্যর্থ হয়, সামরিক শক্তি প্রয়োগের পথ খোলা রাখা হয়েছে।

তাঁর কথায়, “পিএলএ যাতে লাদাখে না ঢোকে সেজন্য আমাদের সরকার চেষ্টা করছে। আমরা শান্তিপূর্ণ পথে দুই দেশের বিতর্ক মিটিয়ে ফেলার পক্ষপাতী। কিন্তু লাইন অব অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলে আগের অবস্থা ফিরিয়ে আনার সব চেষ্টা যদি ব্যর্থ হয়, তাহলে সেনাবাহিনী তৈরি আছে।”

জেনারেল রাওয়াত জানান, লাদাখে স্থিতাবস্থা বজায় আছে কিনা তা খতিয়ে দেখছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল।

গত আড়াই মাসে সামরিক ও কূটনৈতিক স্তরে বেশ কয়েক দফা আলোচনা চালিয়েছে ভারত ও চিন। কিন্তু পূর্ব লাদাখ নিয়ে বিতর্কের মীমাংসার সম্ভাবনা দেখা যায়নি। গত বৃহস্পতিবার ফের দুই দেশের মধ্যে কূটনৈতিক স্তরে বৈঠক হয়। তারপর বিদেশমন্ত্রক জানায়, দুই দেশের চুক্তি ও প্রোটোকল মেনে দ্রুত লাদাখ নিয়ে বিতর্ক মিটিয়ে ফেলা হবে।

জুলাইয়ের শুরুতে সীমান্তে উত্তেজনা কমানোর জন্য অজিত ডোভাল ফোনে দু’ঘণ্টা কথা বলেন চিনের বিদেশমন্ত্রী ওয়াং ই-র সঙ্গে। তারপর সীমান্তে দুই দেশই সেনার সংখ্যা কমিয়ে আনতে থাকে। কিন্তু জুলাইয়ের মাঝামাঝি থেকে সীমান্তে ফের অচলাবস্থা তৈরি হয়।

গত শুক্রবার মোদী সরকার জানায়, পূর্ব লাদাখে উত্তেজনা কমানোর বিষয়টি আদৌ গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করছে না চিন। তারা সেখানে ‘মিসঅ্যাডভেঞ্চার’ করতে গিয়েছিল। ভারতীয় সেনা তাদের যোগ্য জবাব দিয়েছে। একটি সূত্রের খবর, চিনের সঙ্গে বৈঠকে ভারতীয় সেনা দৃঢ়ভাবে জানিয়ে দিয়েছে, লাইন অব অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলে গত এপ্রিল মাসের আগে যে পরিস্থিতি ছিল, তাই বজায় রাখতে হবে। চিন তাতে রাজি নয়।

ভারতীয় সেনা জানিয়ে দিয়েছে, চিনের লাল ফৌজ যদি লাইন অব অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোল পরিবর্তন করতে চায়, তা মেনে নেওয়া হবে না। একটি সূত্রে খবর, পিএলএ গালওয়ান উপত্যকা থেকে সরে গিয়েছে। কিন্তু প্যাংগং সো, দেপসাং এবং আরও কয়েকটি এলাকা দখল করে আছে এখনও। অন্যদিকে মোদী সরকার প্রস্তুতি নিচ্ছে যাতে সামনে শীতের দিনগুলিতেও লাদাখের বিভিন্ন অঞ্চলে আগের মতোই সেনা মোতায়েন করে রাখা যায়।

You might also like