Latest News

কৃষক বিক্ষোভ নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য, লুধিয়ানার কংগ্রেস সাংসদের বিরুদ্ধে মামলা

দ্য ওয়াল ব্যুরো : “কৃষকরা যে আন্দোলন করছেন, তা থামবে না। আমরা রক্ত ঝরাতে পারি। পথে অনেক মৃতদেহ স্তূপাকার হয়ে পড়ে থাকতে পারে। আমরা যতদূর যেতে হয় ততদূরই যেতে প্রস্তুত।” এক টিভি চ্যানেলে দিল্লির কৃষক আন্দোলন নিয়ে এমনই মন্তব্য করেছিলেন লুধিয়ানার কংগ্রেস সাংসদ রভনীত সিং। ওই মন্তব্য করার জন্য মামলা হয়েছে সাংসদের বিরুদ্ধে। অভিযোগ, সাংসদের মন্তব্য দেশের অখণ্ডতার পক্ষে ক্ষতিকারক। তিনি অশান্তি সৃষ্টি করতে চেয়েছেন। হুমকি দিয়েছেন।

গত মাসে দিল্লির যন্তর মন্তরে কৃষকদের বিক্ষোভে শামিল হন রভনীত সিং। তাঁর বিরুদ্ধে এফআইআর হয়েছে পার্লামেন্ট স্ট্রিট থানায়। নবীন কুমার নামে দিল্লির এক বাসিন্দা অভিযোগ করেন, ২৫ ডিসেম্বর এক টিভি চ্যানেলে ওই কংগ্রেস সাংসদ যে মন্তব্য করেছেন, তাতে অনেকে রাষ্ট্রবিরোধী কাজ করতে প্ররোচিত হতে পারেন। তার ফলে জনজীবনে স্থিতাবস্থা বিঘ্নিত হতে পারে।

৩১ ডিসেম্বর সাংসদের বিরুদ্ধে এফআইআর হয়। গত ১ জানুয়ারি ফেসবুকে লাইভ ভিডিও পোস্ট করে সাংসদ জানান, এফআইআরকে তিনি মেডেল বলে মনে করছেন। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের উদ্দেশে তিনি বলেন, “আমি এখানে সারা দিন বসে আছি। কিন্তু আমাকে গ্রেফতার করার সাহস নেই আপনার।”

এক মাসের বেশি সময় ধরে দিল্লি সীমান্তে কৃষক আন্দোলন চলছে। কেন্দ্রের পাশ করা তিনটি কৃষি আইন প্রত্যাহার ও ন্যূনতম সহায়ক মূল্যের আইনি স্বীকৃতির দাবি নিয়ে আন্দোলনে নেমেছে দেশের ৪০টির বেশি কৃষক সংগঠন। কিন্তু এখনও তাদের দাবি মেটেনি। আগামী ৪ জানুয়ারি ফের একবার কেন্দ্রের সঙ্গে বৈঠকে বসার কথা কৃষকদের। আর সেই বৈঠকেই এই সমস্যার সমাধান চান কৃষকরা। নইলে আরও বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন তাঁরা।

রাজনীতিবিদ যোগেন্দ্র যাদব জানান, শুক্রবার ৪০টি কৃষক সংগঠনের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সিংঘু সীমান্তে সাংবাদিক সম্মেলনে যোগেন্দ্র বলেন, “সরকার এখনও আমাদের দুটো দাবি অর্থাৎ তিনটি কৃষি আইন প্রত্যাহার ও ন্যূনতম সহায়ক মূল্যের আইনি স্বীকৃতির বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেয়নি। আমরা আন্দোলনের তীব্রতা আরও বাড়াব। যদি ৪ জানুয়ারির বৈঠকে কোনও সমাধান সূত্র না বের হয় তাহলে ৬ জানুয়ারি জিটি-কার্নাল রোডে ট্র্যাক্টর র‍্যালি বের করব আমরা। যদি সরকার আমাদের দাবি মেনে না নেয় তাহলে আগামী সপ্তাহে শাহজাহানপুর সীমান্ত থেকে দিল্লির দিকে যাত্রা শুরু করব আমরা।”

গত বুধবার ষষ্ঠ দফার বৈঠকের পরে কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর জানিয়েছেন, চারটির মধ্যে দুটি দাবিতে দু’পক্ষের মধ্যে একটা চুক্তি হয়েছে।

You might also like