Latest News

‘আমাকে কোচ হতে দেয়নি কেউ কেউ’, সৌরভের নাম না করে আক্রমণ শাস্ত্রীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভারতীয় দলের কোচের পদ থেকে সরে গিয়ে পুরনো কাসুন্দি ঘাঁটছেন রবি শাস্ত্রী। তিনি এক সর্বভারতীয় ইংরাজি দৈনিককে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে বলেছেন, ‘‘আমাকে ভারতের কোচ হওয়া থেকে আটকাতে চেয়েছিল কেউ কেউ। আমাকে তারা বলতেই পারত, তোমাকে আমাদের পছন্দ নয়, পিছন থেকে ছুরি মারা ঠিক নয়।’’

শাস্ত্রীর এই মন্তব্যের পরে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে তাঁর বিরোধিতা নতুন মোড় নিল, অনেকেই তা মনে করছেন। কারণ লোধার ক্রিকেট পরামর্শদাতা কমিটি একটা সময় রবি শাস্ত্রীর বদলে কোচ হিসেবে দায়িত্ব দিয়েছিল অনিল কুম্বলেকে। সেই ক্রোধ যে শাস্ত্রীর যায়নি, এই বক্তব্যে সেটি পরিষ্কার বোঝা গিয়েছে।

ওই কমিটিতে অবশ্য শুধু সৌরভ নন, ছিলেন শচীন তেন্ডুলকার, ভিভিএস লক্ষ্মণও। তাঁরা কেউই চাননি শাস্ত্রী কোচ হন। এমনকি শাস্ত্রী সেবার ইন্টারভিউ দিয়েছিলেন ছুটি কাটাতে গিয়ে। সেটিও ভাল লাগেনি ওই কমিটির সদস্যদের। সৌরভরা শাস্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছিলেন ভিডিও কলের মাধ্যমে।

বিরাট কোহলির সঙ্গে শাস্ত্রীর সম্পর্ক খুবই ভাল। কোহলিকে ওয়ান ডে অধিনায়কত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার পরেই শাস্ত্রীর এমন সাক্ষাৎকার, সবাই পাঁচে পাঁচে দশই করছে। অনেকেই মনে করছেন, বিরাটের কাজটি শাস্ত্রী ঘুরিয়ে করে দিচ্ছেন। মনে যা রাগ রয়েছে, তার ঝাল মেটাচ্ছেন তিনি।

সাক্ষাৎকারে শাস্ত্রী বলেছেন, ‘‘ধারাভাষ্যের কাজ ছাড়তে বলা হয়েছিল আমাকে। আমি সেই কাজ ছেড়েও দিয়েছিলাম, ভারতীয় দলের সঙ্গে যুক্ত হয়েছিলাম। কিন্তু হঠাৎ আমাকে কোনও কিছু না বলেই সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। হঠাৎ জানতে পেরেছিলাম সেটি, আমাকে কেউ কিছু বলার প্রয়োজনই মনে করেনি, এটা কী করে হতে পারে?’’

তিনি আরও বলেন, ”ওরা যদি আমাকে জানাত, আমরা তোমাকে চাই না, তোমাকে আমরা পছন্দ করছি না, আমরা অন্য কাউকে চাইছি, তাহলে একরকম ব্যাপার ছিল।” ২০১৭ সালে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে পাকিস্তানের কাছে হারের পরে দায়িত্ব ছেড়ে দেন অনিল কুম্বলে। ফিরিয়ে আনা হয় ফের শাস্ত্রীকে। সাক্ষাৎকারে শাস্ত্রী দাবি করেন, ‘‘ন’ মাস পরে যখন ফের দায়িত্ব নিয়ে ফিরে এলাম, আমাকে জানানো হল, দলের ভিতরে সমস্যা রয়েছে, ঠিক করতে হবে।’’

শাস্ত্রী আরও জানিয়েছেন, ‘‘আমি অবাক হয়ে গিয়েছিলাম এই নয় মাসে কী এমন ঘটল, সব বদলে গেল? শুধু তাই নয়, বোলিং কোচ হিসেবে ভরত অরুণকে কেউ চায়নি, আমি জোর করে ওঁকে কোচ করেছিলাম। এত বাধা নিয়ে কী করে কাজ করা যেতে পারে?’’

ভারতের প্রাক্তন কোচের দাবি, ভারতীয় দল যত সাফল্য পেয়েছে, একেকজন ততই নিরাপত্তাহীনতায় ভুগেছে, আমরা ততই ভাল করেছি। এগুলি বোঝা যায়, কারোর ভাল না চাইলেও সঠিক পথে থাকলে সবটা ভাল হবেই।

এই কথার পরিপ্রেক্ষিতে বোর্ড প্রেসিডেন্টকেই কাঠগড়ায় তুলেছেন রবি, সেটিও ভালই টের পাওয়া যাচ্ছে।

 

You might also like