Latest News

বোনকে যৌন হেনস্থার অভিযোগ! গ্রেফতারি এড়াতে গলায় দড়ি দিল বিলেত-ফেরত দাদা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বিলেত-ফেরত দাদার বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ এনেছিল বোন। হাজির হয়েছিল একেবারে পুলিশের দরজায়। অভিযোগের কলঙ্ক মাথায় নিয়েই অবশেষে গলায় দড়ি দিল দাদা। বোনের আনা অভিযোগের সত্যতা প্রমাণের আগেই হার শিকার করে নিল সে।
ঘটনাটি ঘটেছে তেলেঙ্গানার ভদ্রাদি-কোঠাগুডেম জেলার কোঠাগুডেম থানা এলাকায়। জানা গেছে, অভিযোগকারী তরুণী সম্পর্কে মৃত যুবকের খুড়তুতো বোন। বছর কুড়ির ওই তরুণী গত মঙ্গলবার রাতে থানায় গিয়ে দাদার বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ দায়ের করে। সে জানায়, ছোটবেলা থেকেই তার উপর নির্যাতন চালাচ্ছে তার দাদা।
শুধু তাই নয়, তরুণী জানিয়েছে, এই ঘটনায় তার বাড়ির অন্যান্যদের সায়ও রয়েছে। কাকা কাকিমা থেকে শুরু করে তার মা পর্যন্ত সব কথাই জানতেন বলে অভিযোগ করেছে সে। সব জেনেও তাঁরা যুবকের অপরাধকে দিনের পর দিন সমর্থন জানিয়ে এসেছেন। থানায় এহেন অভিযোগ দায়ের হওয়ার পর যে অনতিবিলম্বেই তাঁদের বাড়িতে পুলিশ হানা দিতে পারে, তৈরি হয়েছিল সেই সম্ভাবনা।
গ্রেফতারি এড়াতেই আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে অভিযুক্ত যুবক, প্রাথমিক ভাবে তেমনটাই অনুমান করছে পুলিশ। বুধবার সকাল ৯টা নাগাদ নিজের ঘর থেকেই উদ্ধার করা হয় ওই যুবকের ঝুলন্ত দেহ। সূত্রের খবর, যুবক ছিল পেশায় সফটওয়ার ইঞ্জিনিয়ার। কর্মসূত্রে ব্রিটেনেই থাকত সে, কিন্তু করোনা অতিমারির জেরে গত বছর সে দেশে চলে আসে। তারপর এখানেই থেকে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।
পুলিশের অনুমান, যৌন হেনস্থার অভিযোগের পর নিজের কাজের জন্য অনুতপ্ত হয়েছিল অভিযুক্ত যুবক। লজ্জা আর আত্মগ্লানিতেই তাই নিজের জীবন শেষ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সে। যদিও তার মৃতদেহের কাছ থেকে কোনরকম সুইসাইড নোট পাওয়া যায়নি বলেই খবর।
প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত মাসেই একই রকম এক ঘটনার কথা শোনা গিয়েছিল ঝাড়খণ্ডেও। ধর্ষণে অভিযুক্ত এক ব্যক্তি নিজেই নিজের গলা কেটে ফেলেছিলেন বলে অভিযোগ। গ্রেফতারি এড়াতেই এই ধরণের হঠকারি সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি, জানিয়েছে পুলিশ।

You might also like