Latest News

মমতার ভোট নিয়ে দোলাচল, কোভিডের মধ্যে নির্বাচন কীভাবে, জানতে চাইল কমিশন 

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বাংলায় সাত কেন্দ্রের উপনির্বাচন বকেয়া রয়ছে। তার মধ্যে রয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভবানীপুরের ভোটও। আগামী বছরের গোড়ার দিকে রয়েছে পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা ভোট। তার আগে নির্বাচন কমিশন সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলির কাছে জানতে চাইল, এই কোভিড পরিস্থিতিতে কী ভাবে হবে নির্বাচন ও উপনির্বাচন।

আগামী ৩০ অগস্টের মধ্যে সমস্ত দলগুলিকে এই ব্যাপারে মতামত জানাতে বলেছে কমিশন। বলা হয়েছে, প্যানডেমিক পরিস্থিতিতে নির্বাচন কমিশন ভোট পরিচালনা করেছে। যে সমস্ত গাইডলাইন বা নির্দেশিকাগুলি নির্বাচন কমিশন জারি করেছে তা নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলির মতামত কী তা জানতে চেয়ে চিঠি দিল জাতীয় নির্বাচন কমিশন।

কয়েকদিন আগেই পার্থ চতটোপাধ্যায়, সুব্রত মুখোপাধ্যায়রা সিইও দফতরে গিয়ে অবিলম্বে বাংলার সাত কেন্দ্রের বিধানসভা উপনির্বাচনের দাবি জানিয়েছিলেন। যদিও সেদিন সিইও দফতর জানিয়েছিল, দিল্লি এখনও কোনও প্রস্তুতি নেয়নি বা সঙ্কেত দেয়নি ভোট করার।

এর আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একাধিকবার উপনির্বাচনের দাবি জানিয়েছিলেন। মাস দেড়েক আগে মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, বাংলায় কোভিড পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে। কমিশন চাইলে সাত দিনের নোটিসে ভোট করাতে পারে। তারপর এও বলেছিলেন, আমি তো দেখলাম ভবানীপুরে কোথাও কোথাও করোনা শূন্য।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে নন্দীগ্রামে পরাজিত হয়েছেন। যদিও তা নিয়ে হাইকোর্টে মামলা চলছে। তবে তাঁকে ছমাসের মধ্যে অন্য কেন্দ্র থেকে জিততে হবে। দিদি যে ভবানীপুর থেকে লড়বেন তা ইতিমধ্যেই স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। কারণ ভবানীপুরের জয়ী বিধায়ক তথা বিদ্যুত্‍মন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় ইস্তফা দিয়েছেন। তিনি লড়বেন খড়দহ থেকে।

তৃণমূলের অনেকের সন্দেহ, বিজেপি চাপ দিয়ে বাংলায় উপনির্বাচন আটকে রেখেছে। যাতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখ্যমন্ত্রী থাকা নিয়ে জটিলতা তৈরি করা যায়। তৃণমূল ইতিমধ্যে জাতীয় নির্বাচন কমিশনের দফতরেও উপনির্বাচনের দাবি জানিয়ে এসেছে। এদিন কমিশন জানতে চাইল কী ভাবে ভোট হবে সে ব্যাপারে রাজনৈতিক দলগুলির পরামর্শ, মতামত।

You might also like