Latest News

East Medinipur: প্রধান শিক্ষকের বদলি মানতে নারাজ, খাওয়া বন্ধ করে কেঁদে ভাসাচ্ছে পড়ুয়ারা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: প্রধান শিক্ষকের বদলি (transfer) আটকাতে স্কুলের অফিসরুমের সামনে বসে পড়ে বিক্ষোভ দেখাল ছাত্র-ছাত্রীরা। প্রধান শিক্ষককে স্কুল ছেড়ে যেতে না দেওয়ার জন্য পায়ে পড়ে কান্নায় ভেঙে পড়তেও দেখা গেল ছাত্রীদের। এমনকি তাঁরা ক্লাস ও দুপুরের মিড ডে মিল পর্যন্ত বয়কট করে। ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুরের (East Medinipur) পাঁশকুড়ার চাঁপাডালি উচ্চ বিদ্যালয়ে।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক নরেশ রানা গত ১২ বছর ধরে স্কুল পরিচালনা, ছাত্র-ছাত্রীদের ভাল রাখা, অভিভাবকের মতো স্নেহ দিয়ে পড়ুয়াদের আগলে রাখার কাজ দায়িত্ব সহকারে পালন করে এসেছেন। আর প্রধান শিক্ষকের এমন নিঃস্বার্থ ভালোবাসা পেয়ে তাঁকে নিজের আপনজন করে ফেলেছে স্কুলের সকল ছাত্র-ছাত্রীরা। তাই সেই শিক্ষকের স্কুল ছেড়ে চলে যাওয়া অন্তর থেকে মেনে নিতে পারছে না কেউই। যে কারণে বুক ফাটা কান্না নিয়ে প্রধান শিক্ষকের বদলি রুখতে সোচ্চার সকল ছাত্রছাত্রীরা।

Image - East Medinipur: প্রধান শিক্ষকের বদলি মানতে নারাজ, খাওয়া বন্ধ করে কেঁদে ভাসাচ্ছে পড়ুয়ারা

জানা গেছে, উৎসশ্রী প্রকল্পের মাধ্যমে প্রধান শিক্ষক নরেশ রানা পশ্চিম মেদিনীপুরের সবংয়ে নিজের বাড়ির কাছের স্কুলে যাওয়ার আবেদন করেছিলেন। সম্প্রতি সেই আবেদন মঞ্জুর করা হয়েছিল স্কুল শিক্ষা দফতর থেকে। কিন্তু চাঁপাডালি স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীরা প্রধান শিক্ষকের ভালোবাসা স্নেহ থেকে দূরে সরে থাকতে চাইছে না। আর সে কারণেই ছাত্র-ছাত্রী দরদী প্রধান শিক্ষকের অন্যত্র বদলি কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছে না স্কুলের ছাত্র ছাত্রী থেকে অভিভাবকেরা।

তবে নিয়ম অনুযায়ী তাঁকে বদলি নিয়ে চলে যেতেই হবে। পড়ুয়াদের সামনে এমনটাই জানিয়েছেন প্রধান শিক্ষক নরেশবাবু। শেষ অবধি তিনি চলে গেলে কে আসবেন, আর তিনিও কি বর্তমান প্রধান শিক্ষকের মতই সবাইকে এমন কাছে টেনে নেবে, এখন সেই চিন্তাই ঘুরপাক খাচ্ছে পড়ুয়াদের মধ্যে।

জিডি বিড়লা খুলছে সোমবার থেকে, ফি না দিলে স্কুলে ঢুকতে পারবে না পড়ুয়ারা

You might also like