Latest News

দিদির মঞ্চে দাদা ছিলেন, মোদীর মঞ্চে ঝঙ্কার তুলবেন ডোনা

সুকমল শীল

দুর্গাপুজোর হেরিটেজ স্বীকৃতির পিছনে কার অবদান বেশি, কেন্দ্রের না রাজ্যের? রেষারেষি চলছেই। চলতি মাসের প্রথম দিনই কলকাতায় বিশাল মিছিল ও রেডরোডে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠান করে বাংলার তরফে ইউনেস্কোকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার কেন্দ্রের তরফেও বাংলার দুর্গাপুজোর (Durga Puja 2022) বিশ্বজনীন স্বীকৃতিকে উদযাপন করা হবে কাল, শনিবার। কলকাতা জাদুঘরের লনে বিশাল অনুষ্ঠান হবে।

রাজ্য সরকারের অনুষ্ঠানে ইউনেস্কোর প্রতিনিধিদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন ভাষণ দিয়েছিলেন বাংলার ‘‌দাদা’‌ সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় (Saurav Ganguly)। কিন্তু কেন্দ্র সরকারের অনুষ্ঠানে সৌরভ না থাকলেও থাকছেন তাঁর সহধর্মিনী ডোনা গঙ্গোপাধ্যায় (Dona Ganguly)। অনুষ্ঠানের সব থেকে বড় চমক রয়েছে তাঁর নাচের দল দীক্ষা মঞ্জুরীর। নবদুর্গা থিমের ওপর নৃত্য পরিবেশন করবেন ডোনা–সহ তাঁর দলের নৃত্যশিল্পীরা।

ভারতীয় সংস্কৃতি মন্ত্রক আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে থাকবেন কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি ও বিদেশ প্রতিমন্ত্রী মীনাক্ষী লেখি এবং কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ড.‌ সুভাষ সরকার। প্রতিমা ও মণ্ডপশিল্পী, প্রতিমার অলঙ্কারশিল্পী, ঢাকি, পুরোহিত, বিভিন্ন রাজবাড়ির প্রতিনিধি-সহ ৩০ জনকে সংবর্ধনা জানানো হবে ওই অনুষ্ঠানে। আগমনী ভক্তিগীতি গাইবেন বিশিষ্ট শিল্পী শ্রীকুমার চট্টোপাধ্যায়। অনুষ্ঠান করবেন গোপা চক্রবর্তীর নাচের দলও। সবমিলিয়ে জমজমাট সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে কেন্দ্র সরকারের তরফে।

রাজ্য সরকারের অনুষ্ঠানে বাংলার প্রতিনিধি হিসেবে বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের ঝলমলে উপস্থিতি নজর কেড়েছিল অনেকেরই। একইসঙ্গে অবাকও হয়েছিলেন বহু মানুষ। কারণ যেখানে হেরিটেজ তকমা নিয়ে কেন্দ্র–রাজ্য দড়ি টানাটানি চলছে, সেই আবহে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ঘনিষ্ঠ সৌরভ ওই অনুষ্ঠানে উপস্থিত রয়েছেন দেকে জল্পনা শুরু হয়েছিল। অনেকে মনে করছিলেন, সৌরভের ওই উপস্থিতি ভালো চোখে নাও দেখতে পারেন মোদী–শাহরা। কিন্তু সেই জল্পনায় জল পড়ল কেন্দ্রের অনুষ্ঠানে সৌরভ জায়া ডোনার উপস্থিতিতে।

বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসবের স্বীকৃতির খবরে খুশি হয়ে টুইট করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বঙ্গ বিজেপিও প্রধানমন্ত্রীকে কৃতিত্ব দিয়ে টুইটে লিখেছিল,‘ধন্যবাদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীজি, এটা সম্ভব করার জন্য। সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকায় দুর্গাপুজোকে সংযোজন করতে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে আবেদন করা হয়েছিল।’

যদিও পাল্টা কটাক্ষ করেছিলেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তখনই বোঝা যাচ্ছিল যে, দুর্গাপুজো নিয়ে ঠারেঠোরে কেন্দ্রের সঙ্গে রাজ্য সরকারের একটা রেষারেষি চলছে। বরং বলা যেতে পারে দুর্গাপুজোর গায়ে রাজনীতির রঙ লেগেছে। কৃতিত্ব মমতা ‘চুরি’ করে নিয়েছেন বলেও মন্তব্য করেছিলেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। এখন

কেন্দ্রের তরফে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সৌরভের স্ত্রী ডোনা গঙ্গোপাধ্যায়ের উপস্থিতির কথা শুনে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের একাংশ বলেছেন, সৌরভের খুঁটি অনেক শক্ত ঘাটিতে বাঁধা। সূক্ষ রাজনৈতিক ভারসাম্য বজায় রাখাটাও একটা শিল্প। স্টেপআউট করে ছক্কা হাঁকানোর মতোই। এবং যা বাঘা রাজনীতিকদের কাছেও শিক্ষণীয় হতে পারে।

‘তেল ভরিয়ে দে’‌, পুজোয় কুণালের গানে বিজেপিকে খোঁচা

You might also like