Latest News

‘পালাইনি, চিকিৎসা করাতে আমেরিকা গেছিলাম’, তদন্তকারী অফিসারদের জানালেন চোকসি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ইচ্ছে করে গা ঢাকা দেননি। স্রেফ চিকিৎসা করাতে আমেরিকা উড়ে গেছিলেন। দেশের আইনকে তিনি বরাবর মেনে এসেছেন। ভারত থেকে হাজির হওয়া তদন্তকারী অফিসারদের সামনে এভাবেই নয়া তত্ত্ব খাড়া করলেন ফেরার ব্যবসায়ী মেহুল চোকসি।

৩ জুন ডোমিনিকার আদালতে পিএনবি দুর্নীতির মূল অভিযুক্ত চোকসি আট পাতার হলফনামা জমা দেন। সেখানে তিনি বলেন, ‘ভারতীয় আধিকারিকদের আমি কথাবার্তা বলার জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছিলাম। গ্রেফতারি সংক্রান্ত তাঁদের যা কিছু জিজ্ঞাস্য, সমস্ত প্রশ্ন করার অনুরোধও করি।’

সেই প্রেক্ষিতেই মেহুল জানান, ‘আমি ভারতের কোনও কানুন ভাঙিনি। তিন বছর আগে চিকিৎসা করানোর উদ্দেশ্যে যখন আমেরিকা উড়ে যাই, তখন আমার বিরুদ্ধে দেশের কোনও সংস্থাই ওয়ারেন্ট জারি করেনি।’

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের জানুয়ারি মাসে দেশ ছাড়েন চোকসি। তার কয়েকদিনের মধ্যেই এই হিরে ব্যবসায়ীর নামে আর্থিক তছরুপ ও প্রতারণার অভিযোগ সামনে আসে। পরে জানা যায়, অ্যান্টিগুয়ার নাগরিকত্ব নিয়ে সেই দ্বীপেই আস্তানা গেড়েছেন তিনি। সেদিন থেকে আজ পর্যন্ত চোকসি আর ভারতে পা রাখেননি।

সম্প্রতি অ্যান্টিগুয়া থেকে কিউবা যাওয়ার পথে তাঁকে ডোমিনিকায় আটক করা হয়। জেলবন্দি অবস্থায় তাঁর ছবি সংবাদমাধ্যমের হাতে আসে। জানা যায়, পলাতক ব্যবসায়ীকে হাজতে প্রচণ্ড মারধোরও করা হয়েছে। অন্যদিকে ক্যারিবিয়ান দ্বীপ থেকে চোকসিকে দেশে ফেরাতে উদ্যোগী হয় কেন্দ্রও। পাঠানো হয় ইডি, সিবিআই প্রতিনিধি সমেত আট সদস্যের বিশেষ দল।

এসবের পাশাপাশি ডোমিনিকায় অবৈধ অনুপ্রবেশ নিয়ে মেহুল চোকসির বিরুদ্ধে আলাদা করে মামলা দায়ের করে সেদেশের প্রশাসন। ফেরার ব্যবসায়ী নিজের পিঠ বাঁচাতে একগুচ্ছ প্রস্তাব দিলেও বিচারপতি জামিনের আবেদন নাকোচ করে দেন।

You might also like