Latest News

সরকারি হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগে ফল বিতরণ বিজেপি সাংসদের, ধূপগুড়িতে জোর বিতর্ক

দ্য ওয়াল ব্যুরো, জলপাইগুড়ি: সরকারি হাসপাতালের (government hospital) প্রসূতি বিভাগে ঢুকে ফল বিলি করছিলেন বিজেপি (BJP) সাংসদ। সঙ্গে ছিল তাঁর দলবল। এই ঘটনা নিয়ে জলপাইগুড়ির ধূপগুড়িতে (Dhupguri) এখন রাজনৈতিক তরজা তুঙ্গে। তৃণমূলের অভিযোগ, কোনওরকম অনুমতি ছাড়াই হাসপাতালে ঢুকেছিলেন সেই বিজেপি সাংসদ। এরপরই ঘটনাটি নিয়ে হাসপাতাল চত্বরেই বিক্ষোভ দেখান তৃণমূল কর্মীরা। অন্যদিকে সেই বিজেপি সাংসদের দাবি, তিনি অনুমতি নিয়েই ফল বিলি করেছেন।

গত শনিবার জলপাইগুড়ি লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ ডক্টর জয়ন্ত রায় সদলবলে হাসপাতালে ফল বিতরণ করতে যান। সঙ্গে ছিলেন ধূপগুড়ির বিধায়ক বিষ্ণুপদ রায়, ধূপগুড়ি পুরসভার বিদায়ী বিরোধী দলনেতা কৃষ্ণদেব রায়ও। সেখানে পুরুষ এবং মহিলা বিভাগের পাশাপাশি প্রসূতি বিভাগেও ফল দেওয়া হয়। আর তাতেই বিতর্ক দানা বাঁধে।

জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূল যুব কংগ্রেসের দাবি, বিজেপি সাংসদ তথা চিকিৎসক জয়ন্ত রায় এবং বিজেপি বিধায়ক বিষ্ণুপদ রায় সদলবলে হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগের মতো ওয়ার্ডে কীভাবে প্রবেশ করেন।ফল বিতরণ খুবই ভালো কাজ, কিন্তু একজন চিকিৎসক হয়ে তাঁর এইধরনের দায়িত্বজ্ঞানহীনের মতো কাজ লজ্জাজনক। ধূপগুড়ি পুরসভার বিদায়ী ভাইস চেয়ারম্যান তথা তৃণমূল নেতা রাজেশ কুমার সিং জানান, এই ধরনের কাজকে আমরা ধিক্কার জানাই। তিনি আসলে এক শ্রেণির মিডিয়াকে সঙ্গে নিয়ে গিয়ে সস্তার প্রচার চাইছেন।

বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন ধূপগুড়ির ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিকও। ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক সুরজিৎ ঘোষ বলেন, ‘ফল বিতরণ করতে হলে সিস্টার ইনচার্জের হাতে তুলে দিতে হয়, ডায়েট চার্ট হিসেবে সেটা রোগীদের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়, কোনওভাবেই জেনারেল বা প্রসূতি বিভাগে প্রবেশ করা যায় না। সেকথা জানিয়েও দেওয়া হয়েছিল। অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।’

বেনামে ১৬ কোটি টাকার ওভারড্রাফট, পুলিশের জালে অন্ডালের এক ব্রাঞ্চ ম্যানেজার

You might also like