Latest News

মারাত্মক ঘূর্ণিঝড়ে তছনছ হতে পারে মুম্বই, আশঙ্কা গবেষকদের

দ্য ওয়াল ব্যুরো : ১ কোটি ৮৪ লক্ষ মানুষের বাসভূমি মুম্বই কি কখনও ভয়ংকর প্রাকৃতিক দুর্যোগের কবলে পড়তে পারে? দেশের বাণিজ্যিক রাজধানীতে তেমন বিপদ কখনও ঘটবে কিনা, তা নিয়ে গবেষণা করেছিলেন কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়, ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনলজি এবং ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল মেটেরিওলজির গবেষকরা। তাতে জানা গিয়েছে, মুম্বইয়ে বা তার কাছাকাছি কোনও জায়গায় খুব শক্তিশালী সাইক্লোনের ল্যান্ডফল হতে পারে।

ঘূর্ণিঝড় সমুদ্র থেকে এসে উপকূলে যখন আছড়ে পড়ে, তখন বলা হয় সাইক্লোন ল্যান্ডফল করল। যে জায়গায় ঝড়ের ল্যান্ডফল হয় সেখানে ও তার আশপাশে ক্ষয়ক্ষতি হয় সবচেয়ে বেশি। মুম্বই উপকূলে বা তার আশপাশে যদি সাইক্লোনের ল্যান্ডফল হয়, তাহলে গুরুতর ক্ষতি হবে ঘনবসতিপূর্ণ শহরের। যদিও কোন বছরে মুম্বইতে অমন দুর্যোগ হতে পারে বিশেষজ্ঞরা বলতে পারেননি।

মুম্বইতে সাইক্লোনের সম্ভাবনা আছে কিনা তা নিয়ে প্রথমে প্রশ্ন তোলেন লেখক অমিতাভ ঘোষ। ২০১২ সালে তিনি হ্যারিকেন স্যান্ডিকে আমেরিকার উপকূলে আছড়ে পড়তে দেখেছিলেন। ২০১৫ সালে তিনি লক্ষ করেন, এই প্রথমবার আরব সাগরে সৃষ্টি হওয়া সাইক্লোনের সংখ্যা বঙ্গোপসাগরকে ছাড়িয়ে গেল। ‘দি গ্রেট ডিরেঞ্জমেন্ট’ বইতে অমিতাভ ঘোষ লিখেছেন, বহু শতাব্দী আগে মুম্বই ও তার আশপাশের এলাকা ঘূর্ণিঝড়ের কবলে পড়েছিল। আগামী দিনে তার পুনরাবৃত্তি হতে পারে।

গবেষকরাও লক্ষ করেছেন, আরব সাগরে শক্তিশালী সাইক্লোন সৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা দিন দিন বাড়ছে। কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের আবহাওয়া বিজ্ঞানের অধ্যাপক অ্যাডাম এইচ সোবেল বলেন, আবহাওয়ার পরিবর্তনের ফলে সাইক্লোনের বিপদ এমনিতেই বহুগুণে বেড়েছে। তাছাড়া আরব সাগরেও শক্তিশালী ঘুর্ণিঝড় সৃষ্টি হওয়ার প্রবণতা বাড়ছে।

মুম্বইয়ে ঠিক কত শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় আছড়ে পড়তে পারে? সোবেল বলেন, ১৯৭৫ সালে এবং ১৯৯৮ সালে গুজরাতের পোরবন্দরে যেমন সাইক্লোন আছড়ে পড়েছিল, মুম্বইতেও একই রকম শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় হওয়া সম্ভব। ১৯৯৮ সালের ঝড়ে পোরবন্দরে কয়েক হাজার মানুষ মারা গিয়েছিলেন। মুম্বইয়ে যদি ওইরকম শক্তিশালী ঝড় হয় তাহলে মৃতের সংখ্যা বাড়বে।

You might also like