Latest News

পুজোর পর বাড়বে ডেঙ্গি, দাপট কমবে ঠাণ্ডা পড়লে, মত বিশেষজ্ঞদের

দ্য ওয়াল ব্যুরো:‌ ডেঙ্গি পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে। কিন্তু মানুষের মধ্যে সচেতনতা নেই। এই অভিযোগ উঠছে বিভিন্ন মহলে। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, এখন যে আবহাওয়া রয়েছে, তা স্ত্রী মশা এডিস ইজিপ্টাই বংশবৃদ্ধির জন্য আদর্শ। এবং ওই মশাই ডেঙ্গির (DENGUE) মূল কারণ। কলকাতা পুরসভা পুজোর পর ডেঙ্গি সংক্রমণ বাড়বে বলে মনে করছে।

কলকাতা পুরসভার মুখ্য পতঙ্গবিদ দেবাশিস বিশ্বাস জানালেন, মানুষের সচেতনতা ছাড়া ডেঙ্গির সঙ্গে লড়াইয়ে জেতা সম্ভব নয়। এবছর বৃষ্টি তেমন হয়নি। হালকা বৃষ্টিই ডেঙ্গির মশার জন্য আদর্শ। গত দু’‌বছর করোনার জন্য ডেঙ্গির বাড়বাড়ন্ত কম ছিল। সবাই পরিস্কার–পরিচ্ছন্নতার দিকে নজর দিচ্ছিলেন লকডাউনের সময়। এছাড়াও করোনার ভ্যাকসিনেশন ছিল। ফলে সহজে কাবু করতে পারেনি ডেঙ্গি। কিন্তু এবছর ফের ডেঙ্গি সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

দেবাশিসবাবু বললেন, ‘‌উপসর্গহীন ডেঙ্গি আক্রান্তই এখন চিন্তার কারণ। পুরসভা জ্বর হলেই রক্ত পরীক্ষা করানোর কথা বলছে। কিন্তু অনেকেই শুনছে না। কিছু না জানিয়েই হাসপাতালে ভর্তি হয়ে যাচ্ছেন। যা ঠিক নয়। আর মানুষকে আরও সচেতন হতে হবে। ছোট পাত্রে জল জমতে দেওয়া যাবে না। ডেঙ্গির বিরুদ্ধে লড়াই সারাবছর করতে হবে। তবে ঠাণ্ডা পড়লে ডেঙ্গির প্রকোপ কম হবে।’‌

পুরসভার স্বাস্থ্যবিভাগের বিশেষজ্ঞরা (vector control) জানাচ্ছেন, এডিস ইজিপ্টাই মশা ১৬ এবং ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় বেঁচে থাকে। ওই তাপমাত্রার বাইরেও মশা বেঁচে থাকতে পারে। সেইসঙ্গে ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ আর্দ্রতা এই মশার জন্য সবচেয়ে ভালো। ঠান্ডা না পড়া পর্যন্ত মশার বংশবৃদ্ধি ঠেকানো মুশকিল।

কলকাতায়, সর্বনিম্ন তাপমাত্রা শুধুমাত্র ডিসেম্বর এবং জানুয়ারি মাসে ১৬ ডিগ্রির নীচে থাকে। গত ক’‌য়েকদিন ধরে সর্বোচ্চ আপেক্ষিক আর্দ্রতা ৯০ শতাংশের বেশি। এবং তাপমাত্রা ২৬ থেকে ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে রয়েছে। ফলে বিপুল পরিমাণে ডেঙ্গির মশা বংশবৃদ্ধির সুযোগ পেয়ে যাচ্ছে।

তাই কলকাতা ও বিধাননগর পুরসভার আশঙ্কা পুজোর (Durga Puja 2022) পর ডেঙ্গি সংক্রমণ বাড়বে বই কমবে না। পাশাপাশি পুজোর ভিড়ের মধ্যে কেউ ডেঙ্গি ভাইরাস বয়ে আনতে পারে। সংক্রামিত ব্যক্তিকে মশা কামড়ে ডেঙ্গি ছড়িয়ে পড়তে পারে অন্যদের মধ্যেও।

চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, একজন ডেঙ্গি রোগীর উপসর্গ শুরু হওয়ার ৩ থেকে ৭ দিন পর্যন্ত তিনি সংক্রামিত থাকেন। ওইসময় তাঁকে কামড়ানো মশা সুস্থ্য কাউকে কামড়ালে, তাঁরও ডেঙ্গি হওয়ার সম্ভবনা প্রবল। গত দু’‌সপ্তাহে কলকাতায় ডেঙ্গি আক্রান্তের সংখ্যা হু হু করে বাড়ছে। আক্রান্তের সংখ্যা দেড় হাজার পেরিয়েছে।

বাংলায় ডেঙ্গি বাড়ছে হুহু করে! একদিনে আক্রান্ত ৮৪০ জন

You might also like