Latest News

দিল্লি, মহারাষ্ট্রে ওমিক্রনের তাণ্ডব, আক্রান্ত লাগামছাড়া, সংক্রমণের হার ঝড়ের গতিতে বাড়ছে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ওমিক্রনে নাজেহাল দিল্লি ও মহারাষ্ট্র। করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। দৈনিক সংক্রমণ হাজারের বেশি। পজিটিভিটি রেট তথা সংক্রমণের হার ঝড়ের গতিতে বাড়ছে। দিল্লিতে গতকালের চেয়ে আজ সংক্রমণ এক লাফে ৮৬ শতাংশ বেড়ে গেছে। একদিনেই আক্রান্ত ৯২৩। চিন্তায় ঘুম উড়েছে স্বাস্থ্য দফতরের। অন্যদিকে মুম্বইতে দৈনিক সংক্রমণ আড়াই হাজারের বেশি। কোভিডের তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে বলেই আশঙ্কা করছেন স্বাস্থ্য আধিকারিকরা।

ওমিক্রন ভীতিতে দিল্লিতে হলুদ সতর্কতা জারি করা হয়েছে । বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে স্কুল-কলেজ, সিনেমা হল, জিম, রেস্তোরাঁ। দিল্লি সরকারের নয়া গাইডলাইনে একগুচ্ছ বিধিনিষেধ জারি হয়েছে রাজধানীতে। বলা হয়েছে, শপিং মল ও দোকান খুলবে জোড়-বিজোড় সংখ্যা অনুযায়ী। রাত ১০ টা থেকে ভোর পাঁচটা পর্যন্ত জারি থাকবে নাইট কার্ফু।

সরকারি নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, দোকান ও শপিং মল খোলা থাকবে সকাল ১০ টা থেকে সন্ধ্যা আটটা পর্যন্ত। বেসরকারি সংস্থায় কর্মীদের অর্ধেক অফিসে আসবেন। বিয়ে ও অন্যান্য সামাজিক অনুষ্ঠানে সর্বাধিক ২০ জন অতিথি উপস্থিত থাকবেন। স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকবে। রেস্তোরাঁ ও পানশালায় আসন সংখ্যার অর্ধেক প্রবেশ করতে পারবেন। দিল্লি মেট্রোয় উঠতে পারবেন মোট আসনের অর্ধেক সংখ্যক যাত্রী। বন্ধ থাকবে স্পা ও ওয়েলনেস ক্লিনিক। রাজনৈতিক, ধর্মীয় বা অপর কোনও উৎসব উপলক্ষে লোক জমায়েত করা যাবে না।

ডেল্টার আতঙ্কে এতদিন কাঁপছিল মহারাষ্ট্র। এখন ওমিক্রনের ঢেউ আছড়ে পড়েছে। দৈনিক সংক্রমণ আড়াই হাজার ছাপিয়ে গেছে। নতুন করে ২০ জনের মৃত্যুর খবরও মিলেছে। পরিস্থিতি পর্যালোচনায় প্রশাসনিক কর্তাদের নিয়ে বৈঠকে বসেছেন  মন্ত্রী আদিত্য ঠাকরে। বলা হয়েছে, বছর শেষ ও নববর্ষের অনুষ্ঠানে প্রকাশ্যে ভিড় বা জমায়েত করা যাবে না। নিযম ভঙ্গ করলে কঠোর আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

পাশাপাশি পুলিশের ফ্লাইং স্কোয়াডও ঘুরবে। যেসব প্রতিষ্ঠান নিয়ম লঙ্ঘন করবে, তাদের আগামী  কয়েক মাসের জন্য সিল করে দেওয়া হবে। মুম্বই পুরসভা হাসপাতালের পরিকাঠামো বাড়ানোর কথা ভাবছে। চিকিৎসা, অক্সিজেন সরবরাহ সচল রাখা হবে। বর্তমানে হাসপাতালগুলিতে, কোভিড সেন্টারে ৫৪ হাজার শয্যা তৈরি আছে বলে জানিয়েছেন ঠাকরে। বলেছেন, সংক্রমণ বাড়ছে, তবে আতঙ্কিত হবেন না, কিন্তু সকলকে চরম সাবধান থাকতে হবে, ভ্যাকসিন নেওয়া, মাস্ক পরে থাকা সুনিশ্চিত করতে হবে।

সরকারি নির্দেশিকা জারি করে, রাত ৯ টা থেকে সকাল ৬টা অবধি সবরকমের ভিড়, জমায়েত নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়েছে। পাঁচ জনের বেশি একসঙ্গে দেখলেই পাকড়াও করবে পুলিশ। বড়দিনের হুল্লোড়েও রাশ টানা হয়েছে। নয়া কোভিড গাইডলাইনে বলা হয়েছে, বিয়ে বা যে কোনও সামাজিক অনুষ্ঠানে একশো জনের বেশি নিমন্ত্রণ করা যাবে না। স্পা, জিম, হোটেল-রেস্তোরাঁ, অডিটোরিয়ামে ৫০ শতাংশের বেশি উপস্থিতি চলবে না। দোকান-বাজারে ভিড় দেখলেই আইনি ব্যবস্থা নেবে পুলিশ। জনবহুল জায়গায় সোশ্যাল ডিস্টেন্সিং মানতে হবে। মাস্ক বাধ্যতামূলক।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকাসুখপাঠ

You might also like