Latest News

দেশে ভ্যাকসিন বাড়ন্ত, দিল্লি, কর্নাটক গ্লোবাল টেন্ডার ডাকছে, বাংলা কী করবে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভ্যাকসিনের আকালের খবর আসছে দেশের একাধিক রাজ্য থেকে। বহু মানুষ নাম লেখাতেই পারছেন না টিকার জন্য, অনেকে নাম লিখিয়েও টিকা পাচ্ছেন না। অনেকে আবার প্রথম ডোজ পেলেও দ্বিতীয় ডোজ পাচ্ছেন না। অভিযোগ, দেশে যে দুটি টিকা তৈরি হচ্ছে কোভ্যাক্সিন ও কোভিশিল্ড, তার জোগান পর্যাপ্ত নয় চাহিদার তুলনায়। এই পরিস্থিতিতে এ বার নিজেদের উদ্যোগেই প্রয়োজনীয় টিকা সংগ্রহ করতে ‘গ্লোবাল টেন্ডার’ ডাকতে চলেছে একাধিক রাজ্য সরকার।

গতকাল, মঙ্গলবার কোভিড তেলঙ্গানা মন্ত্রিসভায় এই বিষয়ে বৈঠক করা হয়। পরিস্থিতি মোকাবিলা কীভাবে হবে, তাই নিয়ে আলোচনা করেন মন্ত্রিরা। সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, কোভিডের প্রকোপ কমাতে আগামী বুধবার সকাল ১০টা থেকে ১০ দিনের লকডাউন কার্যকরা করা হবে রাজ্যে। তবে প্রতিদিন সকাল ৬টা থেকে সকাল ১০টা পর্যন্ত সাধারণ মানুষের সব কাজকর্মে ছাড় দেওয়া হবে। একই সঙ্গে ওই বৈঠকে পর্যাপ্ত টিকা সংগ্রহ নিয়েও গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

তেলঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রীর দফতর টুইট করে জানায়, “মন্ত্রিসভা কোভিড ১৯ টিকা সংগ্রহের জন্য গ্লোবাল টেন্ডার ডাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।” এর ফলে বিশ্বের বাজারে অন্য যে সব ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে, সেগুলিও ভারতে আনার ব্যবস্থা করা যাবে।

শুধু তেলঙ্গানা নয়, একই সিদ্ধান্ত দিল্লিরও। টিকা সরবরাহে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে ‘অবহেলা’র অভিযোগ তুলে দিল্লির উপ-মুখ্যমন্ত্রী মনীশ সিসোদিয়া মঙ্গলবার জানান, তাঁর সরকার প্রয়োজনীয় টিকা সংগ্রহের জন্য গ্লোবাল টেন্ডার ডাকতে চলেছে।

পাশাপাশি, গতকালই কেন্দ্রকে কোভিড ভ্যাকসিনের ফরমুলা প্রকাশ করতে বলেছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। দেশে টিকার উৎপাদন বাড়ানোর জন্য তাঁর যুক্তি, “এর ফলে টিকা আরও অনেকে বানাতে পারবেন, জোগান বাড়বে। দেশ এবং বিদেশের বিপুল চাহিদাও মেটানো সম্ভব হবে।”

যদিও এ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এখনও পর্যন্ত কেন্দ্রকেই ভ্যাকসিন সরবরাহ করতে বলেছে। তাঁর দুটো সাফ কথা এক, কেন্দ্র সবাইকে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দিক। দুই, তিনি রাজ্যের সবাইকে বিনামূল্য ভ্যাকসিন দেবেন। কেন্দ্র বিনামূল্যে না দিলেও দেবেন। কিন্তু সমস্যার জায়গাটা হল, ভ্যাকসিনই মিলছে না রাজ্যের নানা প্রান্তে।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক অবশ্য জানিয়েছে, ইতিমধ্যেই সারা দেশে ১৭ কোটি ২৭ লক্ষ ডোজ কোভিড ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে। শেষ ২৪ ঘণ্টায় ২৫ লক্ষেরও অনেক বেশি ডোজ দেওয়া হয়েছে।

তবে কেন্দ্রীয় পরিসংখ্যান যাই হোক না কেন, পর্যাপ্ত টিকার অভাবে বিভিন্ন রাজ্যেই বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির খবর পাওয়া যাচ্ছে। দীর্ঘক্ষণ টিকার জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে থাকার পর হতাশ হয়ে বাড়ি ফেরার ঘটনা ঘটছে সর্বত্রই। এ রাজ্যও ব্যতিক্রম নয়।

You might also like