Latest News

একহাতে রাইফেল, অন্যহাতে স্ক্যালপেল! ভারতীয় সেনাবাহিনীর নতুন গর্ব সিকিমের দীপশিখা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সিকিম থেকে এর আগে মাত্র একজন মহিলাই ভারতীয় সেনাবাহিনীতে চাকরি পেয়েছিলেন। এবার সেই তালিকায় নাম লেখালেন দীপশিখা ছেত্রী। ভারতীয় সেনাবাহিনীর সেকেন্ড মহিলা অফিসার হলেন তিনি। তবে সেনাবাহিনীর দক্ষ জওয়ান ছাড়াও তাঁর আরও একটি পরিচয় আছে। আর্মি মেডিক্যাল এন্ট্রান্স পরীক্ষায় ষষ্ঠ স্থান এবং মেয়েদের মধ্যে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছেন গ্যাংটকের দীপশিখা।

তাই এক হাতে স্টেথোস্কোপ ও অন্য হাতে রাইফেল নিয়ে এবার সীমান্ত পাহারায় গ্যাংটকের তরুণী দীপশিখা। তাঁকে অভিনন্দন জানিয়েছে গোটা সিকিম। রাজেন্দ্র কুমার ছেত্রী ও বিন্দু ছেত্রীর অর্থাৎ দীপশিকার বাবা-মারও গর্বের শেষ নেই ইন্ডিয়ান আর্মির ক্যাপ্টেন ডক্টর দীপশিখাকে নিয়ে!

তাশি নামগিয়াল অ্যাকাদেমি, সেন্ট জোসেফ কালিম্পং এবং বিড়লা বালিকা বিদ্যাপীঠ, পালিনী থেকে পড়াশোনা শেষ করেন দীপশিখা। তার পরে সিকিম মণিপাল ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্স থেকে ডাক্তারি পরেন তিনি।

তার পরে আর্মি মেডিক্যাল এন্ট্রান্স পরীক্ষায় সুযোগ পেয়ে আর্মিতে যোগ দেওয়ার পরে আট মাসের আর্মি ফিল্ড ট্রেনিং নিতে হয় তাঁকে। সেখানে ডাক্তার ও সেনা, এই দুই ভূমিকাতেই তাঁকে ট্রেনিং নিয়ে নিজের যোগ্যতা প্রমাণ করতে হয়।

একদিকে যুদ্ধক্ষেত্রে ডাক্তার হিসেবে আহত সৈন্যদের সফল চিকিৎসা করেন দীপশিখা, অন্যদিকে, তুখোড় জওয়ান হিসেবে অস্ত্র হাতে সীমান্তে পাহারাও দেন অতন্দ্র। শত্রু পক্ষকে আক্রমণ করে ধ্বংসের কৌশলও শিখতে হয় তাঁকে।


ইতিমধ্যেই দীপশিখার ছবি ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। সিকিমবাসীরা নিজেদের পেজে দীপশিখার ছবি দিয়ে পোস্ট করেছেন। বেশ কিছু ডাক্তারদের সংগঠনও ডক্টর দীপশিখা ছেত্রীর কাহিনি পোস্ট করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

You might also like