Latest News

দলিত নাবালকের ছোঁয়ায় অপবিত্র হয়েছেন দেবতা! ৬০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণের নিদান

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দলিত (Dalit) নাবালক হয়ে দেবতাকে (God) স্পর্শ করার দুঃসাহস! মুরুব্বিদের নিদান, যেভাবেই হোক ৬০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ (fine) দিতে হবে, তাও আগামী ১ অক্টোবরের মধ্যে। এই বিপুল পরিমাণ জরিমানার টাকা কোত্থেকে জোগাড় হবে, সেই দুশ্চিন্তায় রাতের ঘুম উড়েছে কিশোরের মা শোভাম্মার। উষ্মাপ্রকাশ করে তিনি জানিয়েছেন, আর দেবতার আরাধনা নয়। এখন থেকে কেবল ডঃ বি আর আম্বেদকরকেই পুজো করবেন তাঁরা।

ঠিক কী ঘটেছিল?

জানা গেছে, কর্নাটকের (Karnataka) উলেরহালি গ্রামে ছিল ভূতায়াম্মা মেলা। সেই গ্রামের মন্দিরের পুজোয় কিংবা মেলায় সমস্ত গ্রামবাসী অংশ নিলেও তাতে দলিতদের অংশ নেওয়ার কোনও অনুমতি নেই। বছরের পর বছর ধরে এমনই নিয়ম চলে আসছে। গত ৮ সেপ্টেম্বর সেই মেলা উপলক্ষে একটি শোভাযাত্রা বেরিয়েছিল। সেখানে এক রাস্তার ধারে উপস্থিত ছিল শোভাম্মার বছর পনেরোর সন্তানও। সেইসময় আচমকাই একটি পোল স্পর্শ করে ফেলে সে। এদিকে পোলটির সঙ্গে যুক্ত ছিল দক্ষিণ ভারতের প্রসিদ্ধ দেবতা সিদিরান্নার মূর্তি। এই ঘটনা দেখতে পান ভেঙ্কটেশাপ্পা নামের এক গ্রামবাসী। এরপর তিনিই সবাইকে জানিয়ে দেন।

এমন ‘অপরাধ’-এর কথা শুনে তড়িঘড়ি বিচারসভা ডাকা হয়। শোভাম্মাকে নির্দেশ দেওয়া হয় সেই সভায় হাজির থাকতে। পরদিন বিচারসভায় গেলে শোভাম্মাকে গ্রামের প্রবীণ মুরুব্বিরা বলেন, তাঁর ছেলে এই কাজ করে বড়সড় অপরাধ করে ফেলেছে। সেইজন্য ক্ষতিপূরণ বাবদ তাঁদের ৬০ হাজার টাকা জরিমানা দিতে হবে। না দিতে পারলে সেই গ্রাম থেকেই বের করে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দলিত নাবালক হয়ে দেবতাকে স্পর্শ করার দুঃসাহস! মুরুব্বিদের নিদান যেভাবেই হোক ৬০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে, তাও আগামী ১ অক্টোবরের মধ্যে। এই বিপুল পরিমাণ জরিমানার টাকা কোত্থেকে জোগাড় হবে, সেই দুশ্চিন্তায় রাতের ঘুম উড়েছে কিশোরের মা শোভাম্মার। উষ্মাপ্রকাশ করে তিনি জানিয়েছেন, আর দেবতার আরাধনা নয়। এখন থেকে কেবল ডঃ বি আর আম্বেদকরকেই পুজো করবেন তাঁরা।

ঠিক কী ঘটেছিল?

জানা গেছে, কর্নাটকের উলেরহালি গ্রামে ছিল ভূতায়াম্মা মেলা। সেই গ্রামের মন্দিরের পুজোয় কিংবা মেলায় সমস্ত গ্রামবাসী অংশ নিলেও তাতে দলিতদের অংশ নেওয়ার কোনও অনুমতি নেই। বছরের পর বছর ধরে এমনই নিয়ম চলে আসছে। গত ৮ সেপ্টেম্বর সেই মেলা উপলক্ষে একটি শোভাযাত্রা বেরিয়েছিল। সেখানে এক রাস্তার ধারে উপস্থিত ছিল শোভাম্মার বছর পনেরোর সন্তানও। সেইসময় আচমকাই একটি পোল স্পর্শ করে ফেলে সে। এদিকে পোলটির সঙ্গে যুক্ত ছিল দক্ষিণ ভারতের প্রসিদ্ধ দেবতা সিদিরান্নার মূর্তি। এই ঘটনা দেখতে পান ভেঙ্কটেশাপ্পা নামের এক গ্রামবাসী। এরপর তিনিই সবাইকে জানিয়ে দেন।

এমন ‘অপরাধ’-এর কথা শুনে তড়িঘড়ি বিচারসভা ডাকা হয়। শোভাম্মাকে নির্দেশ দেওয়া হয় সেই সভায় হাজির থাকতে। পরদিন বিচারসভায় গেলে শোভাম্মাকে গ্রামের প্রবীণ মুরুব্বিরা বলেন, তাঁর ছেলে এই কাজ করে বড়সড় অপরাধ করে ফেলেছে। সেইজন্য ক্ষতিপূরণ বাবদ তাঁদের ৬০ হাজার টাকা জরিমানা দিতে হবে। না দিতে পারলে সেই গ্রাম থেকেই বের করে দেওয়া হবে। কারণ দলিত কিশোরের ছোঁয়া লেগে গ্রামের দেবতা সিদিরান্না অপবিত্র হয়ে গিয়েছেন।

এমন নিদান শুনে স্বাভাবিকভাবেই মাথায় কার্যত আকাশ ভেঙে পড়ে। শোভাম্মা জানিয়েছেন, তাঁর স্বামী বর্তমানে শয্যাশায়ী। পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী তিনিই। প্রতিদিন ভোরবেলা ট্রেনে করে বেঙ্গালুরুতে যান কাজ করতে। ফেরেন অনেক রাতে। অথচ আয় মাত্র ১৩ হাজার টাকা। তাঁর পক্ষে ওই টাকা দেওয়া অসম্ভব। কিন্তু গ্রামের দণ্ডমুণ্ডের কর্তারা নিজেদের সিদ্ধান্তে অটল। আর তাই এখন অসহায় শোভাম্মা বলছেন, এখন থেকে বাড়িতেও আর দেবতার আরাধনা করবেন না তিনি। এমনকি নিজের কথামতোই ঘরের ভিতর থেকে সমস্ত দেবতার মূর্তি তিনি সরিয়ে ফেলেছেন। এর বদলে এখন সেখানে জায়গা পেয়েছে আম্বেদকরের ছবি।

ঋণ আদায়ে প্রেগন্যান্ট মহিলাকে ট্রাক্টরে পিষে মারে এজেন্ট, মাহিন্দ্রা ফাইনান্সকে কঠোর শাস্তি দিল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক

You might also like