Latest News

CPM: পার্থর এলাকায় সিপিএমের মিছিল, ‘চোর ধরো-জেল ভরো’ স্লোগান মন্ত্রীর অফিসের সামনে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে তেড়েফুঁড়ে রাস্তায় নামতে চাইল সিপিএম (CPM)। বুধবার সন্ধ্যায় নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী তথা বর্তমান শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে প্রায় আড়াই ঘণ্টা জেরা করেছিল সিবিআই। পার্থবাবু বেহালা পশ্চিমের বিধায়ক। বৃহস্পতিবার সেই এলাকায় বড় মিছিল করল সিপিএম।

সিপিএম (CPM) নেতা সুজন চক্রবর্তী, কৌস্তভ চট্টোপাধ্যায়, শমিতা হর চৌধুরীদের নেতৃত্বে সেই মিছিলের মেজাজও ছিল চড়া। সিপিএমের মিছিল থেকে স্লোগান উঠল—‘ চোর ধরো, জেল ভরো।’

আরও পড়ুন: পুলিশের সামনেই গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা এসএসসি চাকরি প্রার্থীর, ক্ষোভ রাজ্যপালের

এসএসসি নিয়োগ কেলেঙ্কারি থেকে অক্সিজেন নিয়ে সিপিএম যে বাঁচার চেষ্টা করছে তা বুঝতে অসুবিধা হচ্ছে না তৃণমূলের। বৃহস্পতিবার দুপুরে সম্ভবত সেই কারণেই ঝাড়গ্রামে তৃণমূলের কর্মিসভায় দাঁড়িয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, “আগে তো চিরকুট দিয়ে চাকরি হত, চিরকুট দিয়ে ট্রান্সফার হত”। তৃণমূলনেত্রীর কথায়, “চৌত্রিশ বছর ধরে কী করেছে সিপিএম? আমিও সব খোঁজ নিচ্ছি। আস্তে আস্তে চ্যাপ্টার ওপেন করছি। আগে ভদ্রতা করেছি, তা যদি কেউ দুর্বলতা মনে করেন, তা হলে ভুল করবেন”।

দুপুরে মমতার ওই হুঁশিয়ারির পর সন্ধেয় মিছিল বের করে সিপিএম। পার্থর বিধায়ক অফিসের সামনে দাঁড়িয়ে বেশ কিছুক্ষণ ধরে স্লোগান দেন সিপিএমের নেতাকর্মীরা। সিপিএমের কলকাতা জেলার সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য কৌস্তভ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “বেহালার মানুষ বলছে, পার্থবাবু এসএসসি দুর্নীতির টাকা বিদেশে মেয়ে-জামাইয়ের কাছে পাচার করেছেন। তাই ওঁকে কোনও ভাবে ছাড়া যাবে না। অবিলম্বে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেফতার করতে হবে।”

২০১৬-র ভোটে সামান্য ব্যবধানে পার্থর কাছে এই কেন্দ্রে পরাজিত হয়েছিলেন কৌস্তভ। তিনি এদিন আরও বলেন, “ঝাড়গ্রামে দিদিমণি ৩৪ বছরের চিরকুটের গল্প শুনিয়েছেন। আমরা দিদিমণিকে মনে করিয়ে দিতে চাই, বামফ্রন্ট সরকারের শেষ ১০ বছরে কত ছেলে মেয়ে এসএসসি দিয়ে চাকরি পেয়েছেন তার হিসেবটা তিনি যেন কষে রাখেন। আর চিরকুটের গল্প শুনিয়ে লাভ নেই। ক্ষমতায় আসার পর তো গুচ্ছগুচ্ছ কমিশন তৈরি করেছিলেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য, গৌতম দেব, সুজন চক্রবর্তীদের জেলে ঢোকাবেন বলে। কোথায় গেল সেই সব কমিশনগুলোর রিপোর্ট?’

You might also like