Latest News

বাবুঘাটে বিসর্জনের সময় পুরসভার পে লোডারের ধাক্কায় জখম ১, পুরকর্মীদের মারধর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বাবুঘাটে শুরু হয়ে গেছে প্রতিমা নিরঞ্জন। গাড়ি গাড়ি করে আসছে মানুষ আসছেন মাকে ভাসান দিতে। এমন পরিস্থিতিতে দশমীর দুপুরে বিসর্জন চলাকালীন গঙ্গার ঘাটে ঘটল বিপত্তি (Babughat Accident)! নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে কলকাতার পুরসভার একটি পে লোডার ধাক্কা মারে কয়েকজনকে। জানা গেছে, তাঁদের মধ্যে একজন গুরুতর জখম হয়েছেন।

এই ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় বাবুঘাট চত্বর। মুহূর্তে উত্তেজনার পারদ চড়তে থাকে আগত মানুষদের মধ্যে। জানা গেছে, ওই পে লোডারের চালককে গাড়ি থেকে নামিয়ে মারধর করে উত্তেজিত জনতা। এমনকি তাঁকে বাঁচাতে গিয়ে আক্রান্ত হন পুর কর্মীরাও।

খবর, এদিন দুপুরে একটি ক্লাবের দুর্গা প্রতিমা ভাসান দিতে আসেন পুজো উদ্যোক্তরা। বিসর্জন দেওয়ার জন্য যখন প্রতিমা নিয়ে গঙ্গার ধারে পৌঁছন, তখন হঠাৎই পুরসভার একটি পে লোডার কাঠামো তুলতে এগিয়ে আসতেই নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ধাক্কা মারে কয়েকজনকে। ঘটনায় আহত হন একজন। তার পরই উদ্যোক্তারা ক্ষেপে যান। চাকায় পা দিয়ে উঠে, চালকের আসনে বসে থাকা ব্যক্তিকে এলোপাথাড়ি কিল, চড়, ঘুষি মারা হয়। যদিও পরে পুলিশ এসে পরিস্থতি নিয়ন্ত্রণ করে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের অভিযোগ, এদিন বিসর্জনের জন্য বাবুঘাটে পর্যাপ্ত পুলিশ ছিল না। তাই অবাধে প্রচুর মানুষ ভিড় করছেন এখানে। গঙ্গার গাহতে পুলিশি নিরাপত্তাও রয়েছে ঢিলেঢালা। এখন তুলনামূলক লোক কম, না হলে বড়সড় বিপদ ঘটতে পারত।

পুরকর্মীদের অভিযোগ, পুলিশের সামনেই গোটা ঘটনাটি ঘটেছে। ঘটনার খবর পেয়ে বাবুঘাটে আসেন তৃণমুল বিধায়ক তথা কলকাতা পুরসভার প্রশাসক বোর্ডের সদস্য দেবাশিস কুমার। তাঁকে এইসব বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, ‘যেকোনও দূর্ঘটনায়ই দুর্ঘটনা। কেন ওই পে লোডারটি ব্রেকফেল করল তা খতিয়ে দেখছি আমরা। সার্ভিসিং ঠিকঠাক করা হয়েছিল কিনা।’ বাবুঘাটে কেন পুলিশ কম ছিল? সেই প্রশ্নের উত্তরে দেবাশিসবাবু জানান, ‘পুলিশ কম ছিল সেটা শুনেছি। কিন্তু কেন এমন ঘটনা ঘটল তা নিয়ে আলোচনা করব।’

দশমীর সকালে সিপিএমের পার্টি অফিসে তৃণমূল সাংসদ! উত্তরের সৌজন্যে আলোচনায় ফিরল দক্ষিণের অসৌজন্য

You might also like