Latest News

Congress : উদয়পুরে তিনদিনের চিন্তন শিবির কংগ্রেসের, ২০০৩-এর পুনরাবৃত্তি হবে কি?

দ্য ওয়াল ব্যুরো : আগামী ১৩ মে থেকে কংগ্রেসের (Congress) তিনদিনের চিন্তন শিবির বসছে রাজস্থানের উদয়পুরে। সেখানে আলোচ্যসূচি স্থির করতে সোমবার বৈঠকে বসেছে কংগ্রেস (Congress) ওয়ার্কিং কমিটি। চিন্তন শিবিরে রাজনীতি, অর্থনীতি, সামাজিক ন্যায় এবং যুবকল্যাণ নিয়ে আলোচনার জন্য তৈরি হয়েছে একাধিক সাব কমিটি। শিবির শুরুর আগে কমিটিগুলির সঙ্গেও আলোচনায় বসবেন (Congress) সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী। চিন্তন শিবিরের পরেই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন নিয়ে কৌশল স্থির করবে কংগ্রেস।

এর আগে তিনবার চিন্তন শিবির হয়েছে কংগ্রেসে। ১৯৯৮, ২০০৩ এবং ২০১৩ সালে সোনিয়ার নেতৃত্বেই ‘ব্রেনস্টর্মিং’ করেন কংগ্রেস নেতারা। তার মধ্যে ২০০৩ সালের চিন্তন শিবিরের পরে ‘গ্র্যান্ড ওল্ড পার্টি’ বিশেষ লাভবান হয়। পরের বছর লোকসভা ভোটে জেতে কংগ্রেস। কেন্দ্রে ১০ বছর ক্ষমতায় থাকে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ।

২০১৪ সালের পর থেকে প্রায় প্রতিটি নির্বাচনে হেরে চলেছে কংগ্রেস। বিশেষত পাঁচটি রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনে দল প্রায় ধুয়েমুছে গিয়েছে। পাঞ্জাবও তারা হারিয়েছে আপের কাছে। এই পরিস্থিতিতে দেশের প্রাচীনতম দলের ‘চিন্তন শিবির’ বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ বলে পর্যবেক্ষকদের ধারণা। চিন্তন শিবিরের পরে দল ঘুরে দাঁড়াতে পারে কিনা, সেদিকে নজর রাখবেন পর্যবেক্ষকরা।

এর আগে পাঁচমারহিতে চিন্তন শিবিরে সোনিয়া বলেছিলেন, ভোটে জয়-পরাজয় আছেই। তা নিয়ে উদ্বেগের কিছু নেই। কিন্তু দল যদি সামাজিক ভিত্তি হারিয়ে ফেলে, তা অবশ্যই চিন্তার বিষয়। কংগ্রেস নেতাদের একাংশ মনে করেন, নানা বিষয়ে মোদী সরকারের পালটা বক্তব্য পেশ করা জরুরি। মোদী সরকারের হিন্দুত্ব ও ‘উগ্র জাতীয়তাবাদ’-কে মোকাবিলা না করতে পারলে কংগ্রেসের কোনও আশা নেই।

আরও পড়ুন : Railway: মুম্বইয়ে আচমকাই প্ল্যাটফর্ম টিকিট পাঁচগুণ বেড়ে পঞ্চাশ টাকা, কারণ কি জানেন

You might also like