Latest News

ভোটের আগেই উত্তপ্ত বাসন্তী, গুলিতে জখম তৃণমূল কর্মী

দ্য ওয়াল ব্যুরো, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: নির্বাচনের আগেই অশান্ত বাসন্তী। রবিবার গভীর রাতে বাসন্তীর আমঝাড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের তালদা হালদারপাড়া এলাকায় গুলিতে গুরুতর জখম হলেন এক তৃণমূল কর্মী।

সংঘর্ষে আহত আরও এক তৃণমূল কর্মীর আঘাতও গুরুতর। অনুপ হালদার ও তারক হালদার নামে ওই দুজনকে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

৬ এপ্রিল রাজ্যে তৃতীয় দফার ভোট। বাসন্তী বিধানসভা কেন্দ্রে ওই দিনই নির্বাচন। সমস্ত রাজনৈতিক দলই প্রচারে ব্যস্ত। রবিবার রাতে মিটিং এবং অন্যান্য কাজ সেরে বেশ কয়েকজনের সঙ্গে বাড়ি ফিরছিলেন তৃণমূল কর্মী অনুপ হালদার ও তারক হালদার।

অভিযোগ, রাতের অন্ধকারে ওই দুই তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। গুলিতে গুরুতর জখম হয় অনুপ হালদার।

তৃণমূল কর্মী তারক হালদারকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপ মারে দুষ্কৃতীরা। রক্তাক্ত অবস্থায় দুজন মাটিতে লুটিয়ে পড়ে চিৎকার শুরু করলে দুষ্কৃতীরা পালিয়ে যায়। তড়িঘড়ি দুজনকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

বাসন্তী বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী শ্যামল মণ্ডল বলেন “এলাকায় কোনও সংগঠন নেই বিজেপির। শান্ত বাসন্তীকে অশান্ত করতে আমাদের কর্মীদের লক্ষ্য করে বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা গুলি করে। আমাদের দুই কর্মী জখম হয়েছে। তারা গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।”

অভিযোগ অস্বীকার করে বিজেপি নেতা সঞ্জয় নায়েক বলেন “ভোটের আগে থেকেই বাসন্তী ব্লক তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দলে জর্জরিত। বিগত দিনে প্রচুর মানুষ খুন হয়েছেন। এদিনও নিজেদের মধ্যে গন্ডগোল হয়। নিজেরাই নিজেদের দলের লোকের হাতে আক্রান্ত হয়েছে। নির্বাচনে রাজনৈতিক ভাবে ফায়দা তোলার জন্য বিজেপিকে দোষারোপ করে কালিমালিপ্ত করা হচ্ছে।”

অন্যদিকে বারুইপুর পুলিশ জেলা সুত্রে জানানো হয়েছে এটা নিছক পারিবারিক কলহের জের। একজন গুলিতে জখম হয়েছেন। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।”

You might also like