Latest News

মুখ্যমন্ত্রী আচার্য হলে বিশ্ববিদ্যালয়গুলির ভাল করার সুযোগ রয়েছে: পবিত্র সরকার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বৃহস্পতিবার রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে ঠিক হয়েছে, এবার রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলির আচার্য হবেন মুখ্যমন্ত্রী (Chancellor Mamata)। এতদিন পদাধিকার বলে আচার্য হতেন রাজ্যপাল। এবার তা হবেন মুখ্যমন্ত্রী (Mamata Banerjee)। এ ব্যাপারে শিগগিরই বিধানসভায় বিল এনে আইন সংশোধন করবে রাজ্য সরকার।

সরকারের এই সিদ্ধান্তে রে রে করে উঠেছে বিজেপি। এবং বামেরাও। মুখ্যমন্ত্রীকে আচার্য (Chancellor Mamata)হিসেবে বসিয়ে দেওয়া কতটা গণতান্ত্রিক তা নিয়ে তাঁরা প্রশ্ন তুলেছেন। তবে বর্তমান সরকারের তীব্র সমালোচক হিসেবে পরিচিত শিক্ষাবিদ তথা রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য পবিত্র সরকারের (Pabitro Sarkar) মতে, মুখ্যমন্ত্রী আচার্য হলে অনেক কিছু ভাল করার সুযোগও রয়েছে।

পবিত্রবাবু বলেছেন, “রাজ্যের কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে বিপুল সংখ্যক শূন্যপদ। মুখ্যমন্ত্রী যদি আচার্য হিসেবে তা পূরণ করতে পারেন তা হলে সত্যিই খুশি হব। ছাত্র সংসদের অধিকার ফিরিয়ে দিলেও আমি খুশি হব।”

কেন তিনি একথা মনে করেন তার সপক্ষে ব্যাখ্যাও দিয়েছেন পবিত্র সরকার। তাঁর কথায়, “রাজ্য সরকারে যাঁরা থাকেন, তাঁদের হাতেই সব প্রশাসনিক ক্ষমতা রয়েছে। তুলনায় রাজ্যপালের পদ একেবারেই আলঙ্কারিক। ফলে যে বিষয়গুলোর কথা বলছি, মুখ্যমন্ত্রীর আচার্য হিসাবে সেই কাজ সুযোগ রয়েছে। কেন্দ্রের সঙ্গে রাজ্যের কী ঝগড়া হচ্ছে তা নিয়ে আমার কোনও মাথাব্যথা নেই।”

সামগ্রিক ভাবে মুখ্যমন্ত্রীকে আচার্য করার মন্ত্রিসভার সিদ্ধান্তকে তোষামোদ হিসেবেই দেখতে চেয়েছেন রবীন্দ্র ভারতীর প্রাক্তন উপাচার্য। তাঁর কথায়, “মুখ্যমন্ত্রীকে যে ভাবে খুশি করার চেষ্টা চলছে আমি এই সিদ্ধান্তকে সে ভাবেই দেখছি।” কিন্তু এ কথা বলার পরক্ষণেই ইতিবাচক সম্ভাবনার দিকেও দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন এই প্রবীণ শিক্ষাবিদ।

পর্যবেক্ষকদের অনেকের মতে, মুখ্যমন্ত্রীকে বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য করার ফলে বাংলায় শিক্ষার আরও রাজনীতিকরণ হয়ে গেল বললে অতি সরলিকরণ হতে পারে। অতীতে বাম জমানায় কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়গুলি রাজনৈতিক গ্রাসের বাইরে ছিল না। তা ছাড়া বর্তমানে রাজ্যপাল পদে যিনি রয়েছেন, তাঁর প্রতিটি পদক্ষেপে গৈরিক রাজনীতির অ্যাজেন্ডা স্পষ্ট। শুধু তা নয়, উপাচার্য নিয়োগ নিয়ে রাজ্যপাল ও নবান্নের মধ্যে লাগাতার সংঘাতের পরিস্থিতি তৈরি হচ্ছে। যা সামগ্রিক ভাবে শিক্ষা পরিবেশের সহায়ক নয়। তবে হ্যাঁ মুখ্যমন্ত্রীকে বিশ্ববিদ্যালয়গুলির আচার্য করার পর সেখানে মুক্ত চিন্তার পরিবেশে কোনওরকম বাধা না এলেই ভাল।

আচার্য পদে শিক্ষাবিদ নয় কেন, প্রশ্ন বিরোধীদের, শিক্ষা মহলেরও

You might also like