Latest News

ছোটদের ‘বারান্দা ইস্কুল’! চম্পাহাটিতে দারুণ উদ্যোগ স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার

সুভাষ চন্দ্র দাস

বড়দের স্কুল তো শুরু হয়েছে। কিন্তু ছোটরা? লেখাপড়া প্রায় ভুলতেই বসেছিল খুদে পড়ুয়ারা। তাই পুরনো অভ্যেস ফিরিয়ে আনতে অভিনব উদ্যোগ নিলেন স্কুলের শিক্ষিকারাই। এখন স্কুল বসছে পড়ুয়াদের বাড়ির বারান্দায়। শিক্ষিকারা নিয়মিত পড়ুয়াদের বাড়িতে এসে তাদের পড়িয়ে যাচ্ছেন।

চম্পাহাটির হাড়াল গ্রামের ৯টি এলাকায় ৫ জন করে ছাত্র-ছাত্রী নিয়ে মোট ৪৫ জন ছাত্র-ছাত্রীকে পড়ানোর দায়িত্ব নিয়েছে ‘হরিণাভি সৃজন’ নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। তাঁদের উদ্যোগেই রমরমিয়ে চলছে ‘বারান্দা স্কুল’। শুধু বারান্দা নয়, বারান্দা না থাকলে ঘরের মধ্যেই ক্লাস নিচ্ছেন শিক্ষিকারা। ভ্রাম্যমাণ সেই স্কুলের নাম সৃজন বিদ্যাপীঠ। নভেম্বর মাসের শুরু থেকেই ক্লাসরুমের রঙিন ছবি ধরা পড়ছে।চম্পাহাটির হাড়াল গ্রাম বাজির জন্য বিখ্যাত। সেই গ্রামে ঘরে ঘরে বাজি তৈরির কাজ চলে। আর তাতেই সামিল হয় ছোট বড় সকলেই। ফলে সে গ্রামে লেখাপড়ার আগ্রহ অনেকটাই কম। তবুও বাজি গ্রামে অবৈতনিক প্রাথমিক স্কুল গড়ে তুলেছিল হরিণাভি সৃজন নামের সেই সংস্থা। তারপর অনেকেই তাঁদের শিশুদের বিদ্যালয়ের আঙিনায় নিয়ে যেত আগ্রহী হয়েছেন। তবে করোনা পরিস্থিতিতে স্কুলে যাওয়ার অভ্যাস অনেকটাই চলে গেছে শিশুদের। তাই বিদ্যালয়ের তরফ থেকে একটি অভিভাবক বৈঠক ডাকা হয়।সেখানেই ঠিক করা হয় পড়ুয়াদের বাড়ির বারান্দায় গিয়ে শিক্ষিকারা করোনা বিধি সচেতনতা মেনেই পড়াতে বসবেন।

এতদিন থমকে গেছিল শিক্ষা।তারপর স্বেচ্ছাসেবীদের উদ্যোগে ফের পড়াশোনার জগতে ফিরছে বাজিগ্রামের শিশুরা। অভিভাবকদের সম্মতি নিয়েই বাড়ি বাড়ি বসছে বারান্দা স্কুল।

You might also like