Latest News

এফআইআর লিস্টে ১৫ জনের নাম, নানা হাত ঘুরে সিসোদিয়া কোটি টাকা পেয়েছিলেন, দাবি সিবিআইয়ের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এক মদ ব্যবসায়ী একটি সংস্থাকে এক কোটি টাকা দিয়েছিলেন। যে সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে দিল্লির উপমুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিসোদিয়ার (Manish Sisodia)। দুর্নীতি মামলায় দায়ের হওয়া এফআইআরে এমনই দাবি করেছে সিবিআই। ইতিমধ্যেই সিবিআইয়ের তরফে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। ওই এফআইআরে মণীশ সিসোদিয়া সহ ১৫ জনের নাম রয়েছে। ১১ পাতার এফআইআরে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি, অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র ও ভুয়ো অ্যাকাউন্টের নথি পাওয়া গেছে বলে দাবি তদন্তকারীদের (Manish Sisodia)।

তদন্তকারী সংস্থার দাবি, তারা দুই ব্যক্তির সন্ধান পেয়েছেন। যাঁরা বিভিন্ন মদ ব্যবসায়ীর থেকে টাকা নিয়ে মণীশের (Manish Sisodia) কাছে পৌঁছে দিতেন বা সেই টাকা অন্যত্র পাচার করতেন। এফআইআরে সিবিআই দাবি করেছে, সমীর মহেন্দ্রু নামে এক মদ ব্যবসায়ী রাধা ইন্ডাস্ট্রিজের দীনেশ অরোরার কাছে এক কোটি টাকা দিয়েছিলেন। মণীশের ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত দীনেশ।

শুক্রবারই সকালে দিল্লির উপমুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে হাজির হন সিবিআই আধিকারিকরা। প্রায় ১৪ ঘণ্টা ধরে চলে তল্লাশি। বিকেলে সিবিআই সূত্রে জানা যায়, মণীশ সিসোদিয়ার বাড়ি থেকে কম্পিউটার, মোবাইল সহ বেশ কিছু ইলেকট্রনিক সামগ্রী ও প্রচুর আর্থিক লেনদেন সংক্রান্ত নথি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। এফআইআরে মণীশ সিসোদিয়া ছাড়াও প্রাক্তন আবগারি কমিশনার এ গোপীকৃষ্ণ, ডেপুটি কমিশনার আনন্দ তিওয়ারি ও অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার পঙ্কজ ভাটনগরের নাম রয়েছে। সূত্রের খবর, মণীশ সিসোদিয়া যে কয়েক কোটি টাকা নিয়েছিলেন, তার প্রমাণ তদন্তকারী সংস্থার হাতে রয়েছে।

তবে সিসোদিয়ার (Manish Sisodia) দাবি, তিনি কোনও রকম দুর্নীতি করেননি। তল্লাশির সময় কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার আধিকারিকদের সব রকম সহযোগিতা করেছেন বলেও জানিয়েছেন তিনি। এ প্রসঙ্গে তাঁর বক্তব্য, ‘‘আমি এবং আমার পরিবার তদন্তকারী আধিকারিকদের পূর্ণ সহযোগিতা করেছি। আগামী দিনেও তা করা হবে। আমি কোনও দুর্নীতি করিনি। তাই আমি ভয় পাই না।’’

You might also like