Latest News

Budge Budge: তৃণমূল কাউন্সিলরের প্রাসাদোপম বাড়ি ভাঙল পুরসভা, নির্দেশ দিয়েছিল হাইকোর্ট

দ্য ওয়াল ব্যুরো: তিনি এলাকার দাপুটে তৃণমূল (TMC) নেতা। দীর্ঘদিনের কাউন্সিলর। ২০২০ সালে পুরসভার নির্বাচিত বোর্ডের মেয়াদ ফুরোনোর পর যে প্রশাসনিক বোর্ড দায়িত্বে ছিল তার উপপ্রধান‌ও ছিলেন তিনি। মাসখানেক আগে হয়ে যাওয়া পুরসভা নির্বাচনেও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতেছেন দক্ষিণ ২৪ পরগনার বজবজের (Budge Budge) ১৯ নম্বর ওয়ার্ডের লুৎফর হোসেন। যে নেতার নামে বাঘে-গরুতে কার্যত একঘাটে জল খায় তাঁরই প্রাসাদোপম বাড়ি ভাঙা শুরু করল পুরসভা।  কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে শেষপর্যন্ত সেই বহুতল ভাঙার কাজ শুরু করল বজবজ পুরসভা।

বজবজের (Budge Budge) ১৯ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর লুৎফর হোসেনের এই অবৈধ বহুতল নিয়ে দু’জন কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেন। পরে চাপে পড়ে এক মামলাকারী নিজেকে সরিয়ে নিলেও অন্যজন আত্মগোপন করে আইনি লড়াই চালাতে থাকেন। সপ্তাহখানেক আগে কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তবের নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ ওই অবৈধ বহুতল ভেঙে ফেলার রায় দেয়। অভিযোগ, এলাকায় নিজের রাজনৈতিক দাপটকে কাজে লাগিয়ে মেন রোডের উপর সরকারি জমি ও কবরস্থান দখল করে গড়ে তুলেছিলেন চারতলা প্রাসাদোপম বহুতল।

তিমহামারীর ধাক্কা কাটাতে আমেরিকায় রফতানি হতে পারে ‘মেড ইন ইন্ডিয়া’ ওয়াগন

হাইকোর্ট তাদের রায়ে পরিষ্কার জানিয়ে দেয়, দু’মাসের মধ্যে ওই বহুতলটি ভেঙে সেই সংক্রান্ত স্টেটাস রিপোর্ট আদালতে জমা দিতে হবে বজবজ পুরসভাকে। সেইমতো মঙ্গলবার সকালে বৃষ্টির মধ্যেই চারতলা বহুতলটি ভাঙার কাজ শুরু করেছে বজবজ পুরসভা। পুরপ্রধান গৌতম দাশগুপ্ত নিজে ঘটনাস্থলে হাজির ছিলেন। পরিস্থিতি যদি অন্যরকম হয় তা সামাল দেওয়ার জন্য বিশাল পুলিশবাহিনীও ছিল তৃণমূল কাউন্সিলরের বাড়ির সামনে।

পুরপ্রধান জানান, আদালতের নির্দেশে ভাঙার কাজটি পুরসভাই করছে। তবে এর খরচ নিয়ে বিষয়টি পরিষ্কার না থাকায় আপাতত পুরসভাই সেই দায়ভার বহন করছে। তবে তৃণমূল কাউন্সিলরের তৈরি অবৈধ বহুতল ভাঙার খরচ পুরসভা কেন বহন করবে তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। এই নিয়ে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে বজবজের সাধারণ মানুষের মনে। এ ব্যাপারে বাড়ির মালিক তথা তৃণমূল কাউন্সিলরের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

You might also like