Latest News

বিজেপির লোক কই! পঞ্চায়েতে প্রার্থী হতে প্রস্তাব আন্দোলনরত চাকরিপ্রার্থীদের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: একুশের ভোটের কয়েক মাস আগের ঘটনা। জাতীয় নির্বাচন কমিশনের পুরো বেঞ্চ সেদিন কলকাতায় এসেছিলেন। বিজেপির তরফে মুকুল রায় এবং শিশির বাজোরিয়া তাঁদের সঙ্গে দেখা করে আর্জি জানিয়েছিলেন, বিধানসভা এলাকার ভোটার হলে তিনি যেন সেই কেন্দ্রের যে কোনও বুথে পোলিং এজেন্ট হতে পারেন ।

নির্বাচন কমিশন সেই দাবি অবশ্য মানেনি। কিন্তু সেদিন একটা বিষয় অনেকের কাছেই স্পষ্ট হয়ে গিয়েছিল, সব বুথ এলাকায় বিজেপির (BJP) লোক নেই যিনি পোলিং এজেন্ট হতে পারেন।

এখন যখন দুয়ারে পঞ্চায়েত ভোট (Election) তখন গেরুয়া শিবিরের সেই দুর্দশা আরও যেন প্রকট। পঞ্চায়েতে (Panchayat) বহু জায়গায় প্রার্থী খুঁজে পাচ্ছে না বিজেপি। সূত্রের খবর, টেট, এসএসসির আন্দোলনরত চাকরিপ্রার্থীদের প্রস্তাব দেওয়া হচ্ছে প্রার্থী হওয়ার জন্য।

ইতিমধ্যেই রাজ্য বিজেপি পঞ্চায়েত নির্বাচনের জন্য পৃথকভাবে সাংগঠনিক কমিটি গড়েছে। তার মাথায় রাখা হয়েছে রায়গঞ্জের সাংসদ তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরীকে। দেবশ্রী নিজেও চাকরিপ্রার্থীদের প্রার্থী হওয়ার প্রস্তাবের কথা মেনে নিয়েছেন। তাঁর কথায়, স্থানীয় স্তরে মণ্ডল কমিটি যদি আন্দোলনরত চাকরিপ্রার্থীদের ত্রিস্তর পঞ্চায়েতের কোথাও প্রার্থী করতে চায় তাহলে দলের আপত্তি নেই।

গান্ধী মূর্তির পাদদেশ থেকে কলকাতা স্পোর্টস জার্নালিস্ট ক্লাবের সামনের ধর্নামঞ্চে কান পাতালেই শোনা যাচ্ছে গেরুয়া প্রস্তাবের গুঞ্জন। মূলত দুই চব্বিশ পরগনা, হাওড়া ও হুগলির বাসিন্দা চাকরিপ্রার্থীদের এই প্রস্তাব দিয়েছে বিজেপি।

এ ব্যাপারে তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বলেন, “গোটা বিজেপি পার্টিটা শুধু ফেসবুক আর টুইটারে আছে। বুথে ye ওদের কিচ্ছু নেই এটা তার প্রমাণ। আসলে রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া হয়ে গিয়ে এখন চাকরিপ্রার্থীদের প্রস্তাব দিচ্ছে।”

একুশের ভোটেও দেখা গিয়েছিল তৃণমূলের টিকিট না পাওয়াদের প্রার্থী করার হিড়িক লেগেছিল বিজেপিতে। উত্তরপাড়ায় প্রবীর ঘোষাল, বালিতে বৈশালী ডালমিয়া, সিঙ্গুরে রবীন ভট্টাচার্যদের প্রার্থী করার ফল কী হয় তাও টের পেয়েছিলেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়, অরবিন্দ মেননরা। এবার পঞ্চায়েতে শেষ পর্যন্ত কী হয় সেটাই দেখার।

আয় বাড়াতে রাজ্য মহা-সড়কে টোল আদায়ের ভাবনা রাজ্যের

You might also like